১০ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৪শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রাম  মাঠে বিকেএসপি কাপ কাবাডি চ্যাম্পিয়নশীপ’র ফাইনাল খেলা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আজ সোমবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়। এবারের বিকেএসপি কাপ কাবাডি চ্যাম্পিয়নশীপ ফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিকেএসপি লাল কাবাডি দল খেলায় মৌলভী বাজার এ্যাথলেটিকস ও কাবাডি একাডেমী দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। বিকেএসপি’র মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ.কে.এম মাজহারুল হক পিএসসি,এলএসসি এমফিল’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিকেএসপি’র পরিচালক কর্ণেল মিজানুর রহমান পিএসসি, চট্টগ্রাম বিকেএসপি’র ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক আবু তারেক, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর তসলিমা বেগম নুরজাহান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, কাবাডি বাংলাদেশের জাতীয় ও গ্রাম বাংলার জনপ্রিয় খেলা। আমাদের এই জাতীয় খেলাটি প্রায়ই বিলুপ্তির পথে, হয়তোবা নতুন প্রজন্মর অনেকে এই খেলা সম্পর্কে কিছুই জানে না। তাই তাদের জন্য শুধু কাবাডি নয় সকল ধরণের খেলাধূলার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। করোনার প্রাদুর্ভাবের ফলে দীর্ঘদিন খেলাধূলা হয়নি। সুস্থ থাকার জন্য খেলাধূলা অত্যন্ত প্রয়োজন। তিনি বলেন, খেলাধূলার মাধ্যমে মানসিকতার পরিবর্তন হয়, খেলা হচ্ছে মেধাবিকাশের অন্যতম প্লাটফর্ম। মোবাইল, মাদকাসক্তি, ইভটিজিং, কিশোর গ্যাংসহ সামাজিক অবক্ষয়মূলক কাজ থেকে দূরে সরাতে যুবসমাজকে খেলাধূলার প্রতি উৎসাহিত করতে  হবে। তিনি বিকেএসপির মত অন্যান্য জাতীয় সংগঠকদের নতুন প্রজন্মদের খেলাধূলার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি করার জন্য ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে বিকেএসপি’র মহাপরিচালক স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষে এ প্রতিযোগিতায় যে দলগুলো অংশগ্রহণ করেছে তাদেরকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, সমাজকে সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে হলে খেলাধূলা চর্চার বিকল্প নেই। তিনি আগামীতে আরো বেশি দল এই প্রতিযোগিতাই অংশগ্রহণ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠান শেষে মেয়র বিজয়ী দলের হাতে চ্যাম্পিয়নশীপ ট্রফি তুলে দেন।

মেয়রের নির্দেশে পরিচ্ছন্ন কাজ অব্যাহত

মশক নিধন অভিযানে মশার ওষুধ ছিটানোর কাজ করছে চসিক পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মীরা

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীর নির্দেশে নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন অভিযান পরিচালিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ২৩, ৮, ১৫, ১৬, ১০, ১১ ও ২৬নম্বর ওয়ার্ডে সড়ক, অলি-গলি ও বাড়িতে মশক নিধন ও পরিস্কার ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম উপ-প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম’র নেতৃত্বে পরিচালিত হয়। চসিকের পক্ষ থেকে মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী নগরবাসীকে এই কার্যক্রমে সহযোগিতা করার জন্য আহ্বান জানান। এছাড়া বাড়ির আঙ্গিনা নিজ উদ্যোগে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রেখে নগরবাসীকে নাগরিক দায়িত্ব পালনের জন্য অনুরোধ জানান।

শহীদ জায়া বেগম মুস্তারি শফি’র মৃত্যুতে মেয়রের শোক

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বিশিষ্ট লেখিকা, নারী সংগঠক ও শহীদ জায়া বেগম মুস্তারি শফি’র মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তা তিনি বলেন, দেশ এক দক্ষ নারী সংগঠক ও বিশিষ্ট লেখিকাকে হারালো যা অপূরণীয়। তিনি তাঁর রূহের মাগফেরাতসহ  শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের বিজয় দিবস উদযাপন

ডিপ্লোমা প্রকৌশলী আয়োজিত মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখছেন চসিক মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী

গত ১৮ডিসেম্বর নগরীর সিআরবি শিরীষতলা মুক্তমঞ্চে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদ চট্টগ্রাম জেলা শাখার উদ্যোগে ‘মুক্তিযুদ্ধের বিজয় উৎসব’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি একথা বলেন।

প্রকৌশলী বিজয় চক্রবর্তী’র সঞ্চালনায় ও বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি প্রকৌশলী জাফর আহমেদ সাদেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মো. আব্দুল খালেক, সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মো. হাসমত আলী, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক প্রকৌশলী এস.এম.মাহফুজুর রহমান, অর্থ সম্পাদক প্রকৌশলী শুভাশীষ দাশ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকৌশলী আকবর খান, চাকরি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী ঝুলন বড়ুয়াসহ সংশ্লিষ্টরা।

অনুষ্ঠানে প্রকৌশলীদের সন্তানের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।