৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সিআরবি রক্ষার আন্দোলন পরিবেশ রক্ষার মানবিক আন্দোলন। পৃথিবীর দেশে দেশে পরিবেশ রক্ষার আন্দোলন হচ্ছে। পরিবেশ রক্ষা হলে মানুষ বাঁচবে। বর্ণচোরা-সুবিধাবাদীরা, যাদের কোনো নিজস্ব সত্ত্বা নেই, তারাই সিআরবিতে হাসপাতাল চায়। যাদের মানুষের প্রতি, দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা নেই, যারা টাকা বানানোর ধান্ধায় থাকেন, তারাই সিআরবিতে হাসপাতাল চায়। যারা সিআরবির প্রাণ-প্রকৃতি ধ্বংস করতে সেখানে হাসপাতাল নির্মাণের পক্ষ নেবেন, তারা চট্টগ্রামের তথা দেশের শত্রু হিসেবে চিহ্নিত হবেন। যে কোনো মূল্যে সিআরবি রক্ষা করা হবে।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিআরবি রক্ষায় আন্দোলনকারী সংগঠন নাগরিক সমাজ, চট্টগ্রামের সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। বক্তারা বলেন, সিআরবি রক্ষার আন্দোলনে যারা যুক্ত তারা মানুষের জন্য, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের, পরিবেশ রক্ষার জন্য এবং সত্য-ন্যায়ের পক্ষে আছেন বলেই আন্দোলন করছে। সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করতেই একটি স্বার্থান্বেষী মহল চট্টগ্রামের সিআরবিতে স্থাপনা নির্মাণের নামে লুটপাট ও বাণিজ্যে ষড়যন্ত্র করছে। হেরিটেজ ঘোষিত চট্টগ্রামের সিআরবিতে হাসপাতালের নামে বাণিজ্যিক স্থাপনা নির্মাণ প্রকল্পের মাধ্যমে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুণ্ন করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ১৪ দলীয় জোট নেতা জসিম উদ্দীন বাবুল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুস, অধ্যাপক ড. ইদ্রিস আলী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কবি হোসাইন কবির, আবৃত্তিকার রাশেদ হাসান, প্রনব চৌধুরী, সরোয়ার হোসেন চৌধুরী, বেলায়েত হোসেন, বনবিহারী চক্রবর্তী, সাবেক ছাত্রনেতা শিবু প্রসাদ চৌধুরী, জেনিফার আলম, কবি মিনু মিত্র, লেখিকা ও আবৃত্তি শিল্পী দিলরুবা খানম, আরফাতুল মান্নান ঝিনুক, মাহমুদুল করিম, চৌধুরী জসিমুল হক, সাজ্জাদ হোসেন জাফর,সাকিব, মুস্তাফিজ মাহিন প্রমুখ। সমাবেশ সঞ্চালন করেন মহানগর কৃষি লীগ নেতা হুমায়ুন কবির মাসুদ। উপস্থিত ছিলেন নাগরিক সমাজ, চট্টগ্রামের সদস্য সচিব ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুলসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। বক্তারা আরো বলেন, সিআরবি চট্টগ্রামের ইতিহাস-ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মিত হলে পরিবেশ দূষণ ঘটবে এবং পুরো সিআরবি এলাকাটির প্রাকৃতিক পরিবেশ ও সাংস্কৃতিক বলয় হুমকির মুখে পড়বে। মানুষের চেতনা, নতুন প্রজন্মের দৃষ্টিভঙ্গি উপেক্ষা করে, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য নষ্ট করে কোনো উন্নয়ন হতে পারে না। সিআরবি রক্ষা করতে হবে চট্টগ্রামের স্বার্থে।