৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

যাত্রী হয়রানী, ভাড়া নৈরাজ্য, পরিবহনে বিশৃঙ্খলা, অরাজকতা, দুর্ঘটনা, অন্যায্য ও অগ্রহণযোগ্য কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে দাবি আদায়ের প্রতীকি দিবস হিসেবে দেশে ৩য় বারের মতো এ দিবসটি পালিত হবে। এবার দিবসটির মূল প্রতিপাদ্য স্থির করা হয়েছে “যাত্রী হয়রানী ও ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ চাই”। দিবসটি উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ যাত্রী অধিকার ও সড়ক নিরাপত্তায় নিয়োজিত বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আগামীকাল সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে র‌্যালি ও সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে “যাত্রী হয়রানী ও ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ চাই” শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি বিশিষ্টজনরা বক্তব্য রাখবেন। দেশের বিভিন্ন জেলায় দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে র‌্যালি, আলোচনা সভা ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হবে। উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশসহ পৃথিবীর দেশে দেশে পরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা, যাত্রী হয়রানী ও সড়কে দুর্ঘটনা বন্ধের মধ্য দিয়ে নিরাপদ ও সুশৃঙ্খল পরিবহন সেক্টর গড়ে তোলার বিষয়টি কর্তৃপক্ষের সামনে আনার প্রতীকী দিবস হিসেবে দেশে ২০১৯ সাল থেকে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ যাত্রী অধিকার ও সড়ক নিরাপত্তায় নিয়োজিত বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ঐক্যবদ্ধভাবে ১৩ সেপ্টেম্বর ‘যাত্রী অধিকার দিবস’ পালন করে আসছে। বর্তমানে বৈশ্বিক মহামারির সংক্রমণ প্রতিরোধে লকডাউনে বিশ্বব্যাপী বেসরকারী খাতে গণপরিবহনগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণে শিথিলতা বা গাফেলতি যাত্রীর নিরাপত্তা, হয়রানী ও ভাড়া নৈরাজ্য আরো একদফা উস্কে দিয়েছে। এহেন পরিস্থিতি থেকে মুক্তি দিতে যাত্রী অধিকার ও নিরাপত্তার বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের সামনে আনতে এবার যাত্রী অধিকার দিবস পালনের বিষয়টি অনেক বেশি তাৎপর্য্য বহন করে।