৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চীন থেকে আসা চট্টগ্রাম বন্দরে একটি জাহাজে ৭ নাবিকের দেহে পাওয়া গেছে করোনার উপসর্গ।রবিবার (২২ আগস্ট) করোনার উপসর্গ পাওয়ার পর ১৪ দিনের কোয়ারেনটাইনে রাখা হয়েছে ‘এমভি সেরেন জুনিপার’ নামের ওই জাহাজকে । সেখানে রয়েছেন ওই ৭ নাবিকও। তবে জাহাজটিতে মোট ২১ জন নাবিক রয়েছেন।

বন্দর কর্তৃপক্ষ   ১৪ দিনের কোয়ারেনটাইনে থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব মো. ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

গত ১৯ আগস্ট থেকে জাহাজটির কোয়ারেন্টিন শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে পণ্য খালাসও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বাহামার পতাকাবাহী এ জাহাজ থেকে । চীনের ন্যানটং বন্দর থেকে ১৫ দিন আগে সার নিয়ে রওনা হয়েছিল বাল্ক ক্যারিয়ার এমভি সেরেন জুনিপার।

বাল্ক ক্যারিয়ার সেরেন জুনিপার বর্তমানে  নোঙ্গর করা আছে চট্টগ্রাম বন্দরের আলফা জেটিতে। ১১ মিটার ড্রাফট এবং ১৯০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৩২.২৬ মিটার প্রস্থের এ জাহাজের ধারণ ক্ষমতা ৫৭১৪৫ মেট্রিকটন।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব ওমর ফারুক বলেন, ‘বন্দর কর্তৃপক্ষের স্বাস্থ্য কর্মকর্তার পরামর্শে তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেনটাইনে থাকতে বলা হয়েছে এবং জাহাজটি থেকে পণ্য খালাসও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।’

বন্দরের সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. নুরুল আবছার বলেন, ‘স্থানীয় শিপিং এজেন্টের মাধ্যমে নাবিকদের করোনার উপসর্গ থাকার বিষয়টি জানা গেছে। এরপরই জাহাজে স্বাস্থ্যকর্মী পাঠিয়ে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার ফলাফলের পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হচ্ছে ওই জাহাজকেও।’