চিরবিদায়  নিয়ে না ফেরার দেশে  চলে গেলেন কিংবদন্তী অভিনেতা দিলীপ কুমার। আজ বুধবার (৭ জুলাই) স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৭টায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর।

গত মঙ্গলবার শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল বর্ষীয়ান অভিনেতাকে। তারপর একটু একটু করে সুস্থ হয়ে ওঠছিলেন। এমনকি দু-একদিনের মধ্যে বাড়ি ফিরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। শেষ সময়ে স্ত্রী সায়রা বানু পাশে ছিলেন তার।

দীর্ঘ দিন ধরেই বয়সজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন দিলীপ। সবশেষ মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন। তবে কয়েক দিন আগেই তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে টুইটারে জানিয়েছিলেন সায়রা।

এর আগে ৬ জুন একই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন দিলীপ কুমার। তখনই জানা গিয়েছিল, করোনা নয়, তার ফুসফুসে পানি জমেছে। এর ১২ দিন পর ছাড়া পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু নতুন করে শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় আবার তাকে একই হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়।

ভারতীয় চলচ্চিত্র স্বর্ণ যুগের অন্যতম কিংবদন্তী দিলীপ কুমারকে মনে রাখবে তার অভিনীত ‘দেবদাস’, ‘মুঘলে আজম’, ‘গঙ্গা যমুনা’, ‘রাম অউর শ্যাম’ থেকে শুরু করে ‘মধুমতী’, ‘ক্রান্তি’, ‘শক্তি’, ‘মাশাল’-এর মতো সিনেমার জন্য।