সরকার ঘোষিত লকডাউনে বা বিধিনিষেধ চলাকালীন সময়ে ব্যাংকগুলোকে তার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অফিস আসা-যাওয়ার জন্য নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পরিবহন সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। যদি কোনও ব্যাংক তা নিশ্চিত করতে না পারে তাহলে কর্মীদের যাতায়াত ভাতা দিতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে। এ নির্দেশনা ১৪ এপ্রিল থেকে সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ শুরুর সময় থেকে প্রযোজ্য হবে।

দেশে কার্যরত সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের বরাবর পাঠানো নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ‘করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার কর্তৃক আরোপিত বিধিনিষেধের মধ্যে বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু রাখার সময়সীমা প্রাথমিকভাবে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল নির্ধারণ এবং পরবর্তীতে ২১ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়। এ অবস্থায় ব্যাংকের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের স্ব স্ব অফিসে আনা-নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশনা দেয়া হয়। তবে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ চলাকালে ব্যাংক সব ক্ষেত্রে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হয়েছে। ব্যাংকে আসা-যাওয়ার জন্য গণপরিবহনের অপ্রতুলতার কারণে ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অধিক ব্যয় ও ভোগান্তির সম্মুথিন হচ্ছেন।’

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, ‘ব্যাংকের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যাতায়াত সমস্যা নিরসনে ব্যাংক তার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকের ব্যবস্থাপনায় নিজস্ব পরিবহন সুবিধা নিশ্চিত করবে। কোনও কারণে যাতায়াত সুবিধা নিশ্চিত করতে অসমর্থ বা ব্যর্থ হলে আসা-যাওয়ার জন্য ব্যাংক ব্যবস্থাপনা কর্তৃক যৌক্তিক হারে যাতায়াত ভাতা প্রদান করবে। এ সংক্রান্ত ব্যয়ের বিষয়ে পরবর্তীতে স্ব স্ব ব্যাংকের পরিচালক পর্ষদের কার্যোত্তর অনুমোদন গ্রহণ করবে।’