১৭ নম্বর পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ শহিদুল আলম করোনায় আয় উপার্জন কমে যাওয়া পশ্চিম বাকলিয়ার ২৭ দরিদ্র পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প ইউএনডিপির পুষ্টির আওতায় আজ সোমবার সকালে শহিদুল আলমের বাসভবন প্রাঙ্গণে প্রত্যেক পরিবারের সদস্যদের হাতে এসব খাদ্যসামগ্রী তুলে দেয়া হয়। বিতরণকরা খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল মশুর ডাল,সয়াবিন তেল ও ডিম। খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে কাউন্সিলর শহিদুল আলম বলেন,বৈশ্বিক মহামারি করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সরকারি ভাবে ১ সপ্তাহের লকডাউন দেয়া হয়েছে। এতে সমাজের দরিদ্র জনগোষ্ঠী আয় উপার্জনে প্রভাব পড়বে এটা স্বাভাবিক। তাই সরকারি-বেসরকারি ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা-এনজিওদের সহায়তার পাশাপাশি সমাজের বিত্তশালীদের দরিদ্র মানুষজনের পাশে দাড়ানো উচিত। তিনি এলাকার সর্বস্তরের বাসিন্দাদের প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরিধান এবং বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার আহ্বান জানান। শহিদ এলাকাবাসীকে নিজে পরিস্কার থাকার পাশাপাশি তাদের চারপাশ পরিস্কার রাখতে বলেন। এসময় আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিয়োদ্ধা মোহাম্মদ মুসা, পশ্চিম বাকলিয়া ২নম্বর ইউনিট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল হাকিম, পশ্চিম বাকলিয়া আহ্বায়ক কমিটির সদস্য এম এ হানান্ন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প ইউএনডিপির পুষ্টির এসএনএফ সিমলা চৌধুরী, লাকী দাশ,নীলা দত্ত, সিএফ ঊমা কর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।