৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সোনাগাজীতে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ স্থানীয় এক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে । গ্রেপ্তার তমিজ উদ্দিন নয়ন (৫০) সোনাগাজীর মতিগঞ্জ ইউনিয়নের ভাদাদিয়া গ্রামের চুনি মাঝির নতুন বাড়ির বাসিন্দা ও স্থানীয় ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। তিনি পেশায় একজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী।

ধর্ষণের শিকার কিশোর স্কুলছাত্রী। তার বয়স ১৪ বছর।  তমিজ উদ্দিন নয়ন তার বাবার চাচাতো ভাই। বৃহস্পতিবার ধর্ষণের শিকার কিশোরীর অভিযোগের ভিত্তিতে রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সোনাগাজী থানার ওসি (তদন্ত) আাবদুর রহিম সরকার জানান, এ ঘটনায় ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করছেন। কিশোরীকে জবানবন্দি গ্রহণের জন্য ফেনীর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

কিশোরীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ সেপ্টেম্বর সকালে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় তাকে জোর করে বাজারের নিজ দোকানে নিয়ে ধর্ষণ করে নয়ন। তার ভয়ে মেয়েটি এতদিন মুখ বুজে ছিল। বৃহস্পতিবার সকালে কিশোরীটি এ ব্যাপারে তার মাকে জানালে ঘটনাটি প্রকাশ পায়। এটা নিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। তবে নয়ন প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তার ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি হয়নি। পরে পরিবারের সদস্যরা থানায় গিয়ে অভিযোগ জানালে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ, নির্যাতিতার পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, ভাদাদিয়া গ্রামের চুনি মাঝি বাড়ির মৃত সৈয়দ আহম্মদের ছেলে তমিজ উদ্দিন নয়নের বাড়ির সামনে একটি ফার্নিচারের দোকান রয়েছে। ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে তার দোকানের এক কর্মচারীর স্কুলপড়ুয়া মেয়ে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় দোকানে ডেকে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন নয়ন।

ঘটনাটি কাউকে জানালে তাকে ও তার বাবাকে হত্যার হুমকিও দেন নয়ন। বিষয়টি নয়নের স্ত্রী দেখে ফেললে তার মুখ বন্ধ করার জন্য তাকেও মারধর করেন তিনি।

কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার সময় বিষয়টি জানাজানি হলে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে ওই ছাত্রী তার বাবা-মায়ের কাছে ঘটনা খুলে বলে।

আর পড়ুন:   টিভি লাইভে করোনার টিকা নিলেন জো বাইডেন

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. আবদুর রহিম সরকার জানান, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে রাতেই তমিজ উদ্দিন নয়নকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।