৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জসহ সারাদেশে একের পর এক ঘটে যাওয়া ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিবাদে মঙ্গলবার (০৬ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে কালো পতাকা মিছিল করার ঘোষণা এসেছে। আজ সোমবার (০৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ‘ধর্ষণের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ ব্যানারে আন্দোলনকারীরা এ ঘোষণা দেন।

এর আগে সকাল থেকে ধর্ষণের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যানারে আন্দোলন করেন ছাত্র ইউনিয়নসহ সমমনা সংগঠনের নেতাকর্মীরা। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তারা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিল শেষে শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করেন তারা।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল ও সাধারণ সম্পাদক অনিক রায়, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদেরী জয়, ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি জহর লাল রায়, ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দীসহ অনেকেই।

সুরমা থেকে সমুদ্রের উপকূল থামছে না নারীর চোখের জল

ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি জহর লাল রায় সাংবাদিকদের বলেন, আমরা আজ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজপথে ছিলাম। পরিস্থিতিতে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় আবারও আমরা শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে জমায়েত হব এবং সেখান থেকে সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বেলা ১২টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে কালো পতাকা মিছিল করব।

শাহবাগের আন্দোলনকারী বক্তারা বলেন, ধর্ষণের দৃষ্টান্তমূলক বিচার না হওয়ায় ধর্ষণের ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সব ঘটনা চোখের সামনে আসে না। যেসব ঘটনা আসে, সেগুলোতে কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করে সরকার দায়িত্ব পালন করে। এ থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। বর্তমানে সরকারি দলের ছাত্র সংগঠন বেপরোয়া হয়ে ওঠছে। তারা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে ধর্ষণের মতো ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটাচ্ছে। তাই ক্ষমতার প্রভাবে কেউ যেনও কোনো প্রকার ছাড় না পায়।