৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারাবিশ্বে যখন করোনা আক্রান্ত দেশগুলোর অর্থনৈতিক অবস্থা মন্দার দিকে যাচ্ছে তখন আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা তুলনামূলকভাবে ভালো। সরকার প্রধানের দিক নির্দেশনায় দেশের মানুষের অগ্রগতির জন্য কাজ করছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। লকডাউন থাকা স্বত্বেও দেশের প্রধান প্রধান নগরী ঢাকা, চট্টগ্রামসহ যেসব স্থানে ওয়াসার কার্যক্রম রয়েছে সেখানে পানি সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে কাজ করেছে সরকার।

আজ শনিবার(১৯সেপ্টেম্বর) সকালে কুমিল্লা পল্লী উন্নয়ন একাডেমির দু’দিন ব্যাপী ৫৩তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সাথে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড) এর ময়নামতি অডিটরিয়ামে শনিবার দু’দিন ব্যাপী ৫৩তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনের উদ্বোধন হয়েছে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব রেজাউল আহসানের সভাপতিত্বে গেস্ট অব অনার হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন সিরডাপের মহাপরিচালক ড. চার্ডস্যাক ভিরাপাত।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আরো বলেন, করোনাকালীন সময়ে স্থানীয় সরকারের অধীনে থাকা মহানগর, জেলা পরিষদ, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিটি সদস্য নিরাপদ দূরত্বে থেকে জনগণের মাঝে সরকারের দেয়া ত্রাণ বিতরণ করেছেন। জনপ্রতিনিধিরাই নিজ নিজ এলাকার কার কার ত্রাণ প্রয়োজন এ বিষয়টি ভালো করে জানার কারণেই সরকারের এই উদ্যোগ ছিল।

তিনি বলেন, কোভিডের কারণে স্থবির হওয়া দেশের অর্থনীতি উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় প্রায় সব কার্যক্রম চালু রেখেছে। এসময় জনপ্রতিনিধিদের দিয়ে ব্যাপকভাবে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের পর যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠনে ও বাংলাদেশের পল্লী উন্নয়নে বার্ড অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। বার্ডের পরীক্ষামূলক প্রকল্পগুলো সারাদেশে জাতীয় পর্যায়ে বাস্তবায়নের কথা স্মরণ করে তিনি আরো বলেন, বর্তমানে এলজিইডি, উপজেলা কমপ্লেক্স, বিএডিসি, বার্ডের সফল কর্মসূচির ফসল। স্থায়ীভাবে দেশের দারিদ্র্য বিমোচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন প্রসূত ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের আওতায় লালমাই-ময়নামতি প্রকল্পের মাধ্যমে লালমাই অঞ্চলের পাহাড়ি এলাকায় জনগণের জীবন-জীবিকার মানোন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের কথাও তিনি বলেন।

আর পড়ুন:   পণ্যপরিবহন বন্ধ ঘোষণা অনির্দিষ্টকালের জন্য

এছাড়াও তিনি সরকারের অগ্রাধিকারভূক্ত এজেন্ডা ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নে বার্ডকে অগ্রণী ভূমিকা গ্রহণের জন্য আহবান জানান।

মন্ত্রী অনুষ্ঠান শেষে লালমাই-ময়নামতি প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের মাঝে ১০ লাখ ৫০ হাজার টাকা ঋণ বিতরণ করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, বার্ড কুমিল্লা তথা বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যবাহী স্বনামধন্য গবেষণা ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান। তিনি আরো বলেন, বার্ড অতীতের মতো ভবিষ্যতেও পল্লীর জনগণের উন্নয়নে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাবে। সভাপতির বক্তৃতায় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মো. রেজাউল আহসান বলেন, বার্ড বাংলাদেশের পল্লী উন্নয়নে সূতিকাগারের ভূমিকা পালন করেছে। বার্ডের পরীক্ষামূলক প্রকল্পগুলো সারাদেশে জাতীয় পর্যায়ে বাস্তবায়িত হয়েছে।

উল্লেখ্য, বার্ড গত অর্থবছরে ১০টি আন্তর্জাতিক কোর্সসহ মোট ২৬৩টি কোর্সের মাধ্যমে ৯৫৫০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন। জাতীয় পর্যায়ে প্রশিক্ষণের মধ্যে রয়েছে বিসিএস ক্যাডারভূক্ত কর্মকর্তাদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ, বিশেষ বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ, বিভিন্ন প্রকল্পের তৃণমূল পর্যায়ের সুবিধাভোগীদের জন্য আয়োজিত প্রশিক্ষণ কোর্স। গবেষণা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বার্ড গত বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনের সিদ্ধান্তের আলোকে ১৪টি গবেষণা কর্ম সম্পন্ন করেছে। এছাড়াও বার্ড বর্তমানে সরকারের রাজস্ব খাতের অর্ন্তভুক্ত লালমাই-ময়নামতি প্রকল্প, বার্ড ভৌত সুবিধাদি উন্নয়ন প্রকল্প, বার্ড আধুনিকায়ন প্রকল্প এবং সিভিডিপি ৩য় পর্যায় প্রকল্পসহ বার্ড নিজস্ব অর্থায়নে আরো ১৩টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

এর আগে অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য বার্ডের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) মোহাম্মদ আবদুল কাদের ও ধন্যবাদ বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পরিচালক ড. মাসুদুল হক চৌধুরী  ।