৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারে বাজিমাত করে ফেলল রাশিয়া! আজ মঙ্গলবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানালেন, তার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় এই ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দিয়েছে। অনুমোদিত ভ্যাকসিনটি প্রথম প্রয়োগ করা হয়েছে রুশ প্রেসিডেন্টের মেয়ের দেহেই।

মস্কোর গামালেয়া ইনস্টিটিউট বানিয়েছে এই ভ্যাকসিন। বিশ্বের প্রথম করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনটি দ্রুত ট্রায়ালের পর সবুজ সংকেত দিয়েছে রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এই করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন নিয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী পুতিন। দেশ তথা বিশ্ববাসীর শঙ্কা দূর করতে জানালেন, তার মেয়েকেও দেয়া হয়েছে এই ভ্যাকসিন। খুব অল্প সময়েই বাজারে আনার জন্য শুরু হয়ে যাবে বড় মাত্রার উৎপাদন, সাংবাদিকদের এমনটাই জানালেন পুতিন। তিনি জানান, প্রয়োজনীয় পরীক্ষা শেষেই ভ্যাকসিনটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্টের নির্দেশ অন্তত ৬০ শতাংশ রুশ নাগরিকের শরীরে করোনা টিকা দিতে হবে। রাশিয়ার পরিকল্পনা এই বছর অন্তত চার কোটি টিকা বাজারে আনার। এই মুহূর্তে রুশ প্রশাসন চাইছে, রিস্ক ওয়ার্কার বলয়ে যারা রয়েছেন অর্থাৎ স্বাস্থ্য ও অন্যান্য জরুরি পরিষেবাকর্মীদের এ মাসেই টীকাকরণ করতে। অক্টোবর থেকে টিকাকরণ হবে গণহারে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি অনুযায়ী, প্রতিটি পরীক্ষায়, প্রতিটি বর্গে সাফল্যের পরিচয় দিয়েছে তাদের ভ্যাকসিন। ১৮ জুন মাত্র ৩৮ জন ভলেন্টিয়ার নিয়ে পরীক্ষা শুরু করে রাশিয়া। এর পরের ধাপের পরীক্ষা চলে ১৫-২০ জুলাই।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের প্রতিরোধী ভ্যাকসিন বা প্রতিষেধক আবিষ্কারের জন্য বিশ্বজুড়ে অনেকগুলো উদ্যোগ চলছে। তাতে সবার আগে সাফল্যের খবর শোনাল রাশিয়া।