৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘন্টায় ৭টি ল্যাব মিলে ৭৮১টি নমুনা পরীক্ষায় ১৬২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে নগরের  ১১৭ জন ও  বিভিন্ন উপজেলার ৪৫ জন।

এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনা শনাক্তের  সংখ্যা দাঁড়ালো ১১ হাজার ১৯৩ জন। এর মধ্যে  নগরের৭ হাজার ৭৯৫ জন  ও  বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা আছেন ৩হাজার ৩৯৮ জন ।

ইতোমধ্যে করোনায় সংক্রমিত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম নগরে ২ জন ও উপজেলায় ১জনের মৃত্যুবরণ করেন। মোট মৃত্যুসংখ্য ২১৩ জন; এর মধ্যে নগরের  ১৫২ জন ও ৬১ জন উপজেলার বাসিন্দা।

শুক্রবার (১০ জুলাই) সকালে এসব তথ্য জানান চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি ।

তিনি জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার ফৌজদারহাটের বিআইটিআইডিতে ১৮১ জনের নমুনা পরীক্ষায়  নমুনা পরীক্ষায় ২৮ জনের  করোনা পজিটিভ এসেছে । এর মধ্যে নগরের ১২ জন  ও ১৬ জন উপজেলা পর্যায়ের বাসিন্দা।

এছাড়া বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে  ১৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে; এর মধ্যে ২৩ জন নগরের ও ২ জন বিভিন্ন উপজেলার।

এদিকে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটির (সিভাসু) ল্যাবে বৃহস্পতিবার ৭৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন   ১৬ জন। এর মধ্যে  নগরের  ১২ জন ও ৪ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৬২ জনের নমুনা পরীক্ষায়করে ৩৩ জনের  মধ্যে  পাওয়া যায় করোনা পজিটিভ । এর মধ্যে ১৬ জন  নগরের ও বিভিন্ন উপজেলার আছেন ১৭ জন ।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের ১জনের নমুনা পরীক্ষা করে তার করোনা নেগেটিভ হয়।

অন্যদিকে বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩১ জনের; এর মধ্যে ২৮ জন  নগরের ও উপজেলার ৩ জন আছেন।

শেভরণ ল্যাবে ৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনা শনাক্ত হয়েছে  ২৯ জনের। আক্রান্তদের মধ্যে নগরের  ২৬ জন ও ৩ জন উপজেলার বাসিন্দা।

আর পড়ুন:   নদী দখলকারীদের নির্বাচন ও ঋণের অযোগ্য ঘোষণা হাইকোর্টের

চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলায় নতুন শনাক্ত ৪৫ জনের মধ্যে বাঁশখালীর ৪, আনোয়ারার ১, চন্দনাইশের ১, পটিয়ার ১, রাঙ্গুনিয়ার ২, রাউজানের ৭, ফটিকছড়ির ৪, হাটহাজারীর ১৪, সীতাকুণ্ডের ৩, সন্দ্বীপের ২ ও   মিরসরাইয়ের আছেন ৬ জন ।

করোনায় সংক্রমিতদের মধ্যে চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৬ জন,  এ পর্যন্ত  মোট ১ হাজার ৩৪০ জন সুস্থ হয়েছেন।