৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সরকারমন্ত্রীর করোনাভাইরাসের সংকটকালীন সময়ে এডিস মশা রাজধানীসহ সারা দেশের মানুষের জন্য যেন সহনীয় পর্যায়ে থাকে সেজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

মন্ত্রী আজ মঙ্গলবার (২৩জুন) সচিবালয়ে নিজ কক্ষে সারাদেশে ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধ কার্যক্রম পর্যালোচনা নিয়ে অনলাইনে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এ নির্দেশ দেন।

মন্ত্রী বলেন, দায়িত্বশীল পদে বসে অতিরিক্ত কথা না বলে দায়িত্ব নিয়ে মানুষের বসবাসের জন্য স্বস্তিদায়ক পরিবেশ তৈরিতে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে দিনরাত নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, তাই পদ দখল করে বসে না থেকে মানুষের জন্য, মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, তার তত্ত্বাবধানে এডিস মশা নিধনে অত্যন্ত গুণগত মানসম্পন্ন কীটনাশক আমদানি করায় এ বছরের শুরু থেকে এডিস মশার প্রকোপ অনেক কমেছে। এ সময় ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মশা নিধনে উৎকৃষ্টমানের কীটনাশক সরবরাহ করায় মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

মো. তাজুল ইসলাম ঢাকা শহরকে এডিস মশা, ময়লা-আবর্জনা মুক্ত করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন নগর গড়তে ঠিক মত কাজ হচ্ছে কি না তা দেখতে তিনি নিয়মিতভাবে বিভিন্ন স্থান মাঝে মাঝে পরিদর্শন করবেন বলে জানান। মশার ওষুধ ছিটানোতে কারো কোনো গফলতি সহ্য করা হবে না। তার সার্বক্ষণিক তদারকি এবং ব্যক্তিগতভাবে বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করায় কাজে গতি এবং স্বচ্ছতা এসেছে বলেও জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী থেকে শুরু করে জনপ্রতিনিধি সবাইকে জবাবদিহিতার মধ্যে থাকতে হবে। নগরবাসীকে নিজেদের বাড়ি ও এর আশেপাশে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এডিসের লার্ভা কোনক্রমেই যেন তৈরি না হয় সেদিকে সবাইকে নজর রাখতে হবে।

এডিস মশা নিধন প্রতিরোধ কার্যক্রমে সিটি কর্পোরেশন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, পূর্ত বিভাগ এবং ঢাকা ওয়াসাসহ অন্যান্য মন্ত্রণালয় এবং বিভাগের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে সন্তোষ প্রকাশ করে সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান স্থানীয় সরকার মন্ত্রী।

আর পড়ুন:   ছয় দফা দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায় অনুযায়ী ঢাকা এবং এর আশ-পাশের বুড়িগঙ্গা, তুরাগসহ বিভিন্ন নদ-নদী দখলমুক্ত করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করা হয়েছে করে উল্লেখ করে এ নিয়ে শীঘ্রই একটি সভা আহ্বান করার জন্য ওয়াসা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী।

বিগত সভায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে দুই সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্টদের যে সকল দায়িত্ব বন্টন করা হয়েছিল সেগুলো সভায় উপস্থাপন করে তা পালন করতে গিয়ে কতৃপক্ষ যে সকল সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে সে বিষয়েও স্থানীয় সরকার মন্ত্রীকে অবহিত করা হয়। এসময় কাজ করতে গিয়ে কর্মকর্তারা যেসব সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন তা সমাধানে তার মন্ত্রণালয় থেকে যা যা করার দরকার তার সব পদক্ষেপ নিবেন বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তিনি।

সভায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম, দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঢাকা ওয়াসার এমডিসহ  বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগণ অংশ নেন।