ঘুমোনোর পরেও শান্তি নেই। যতই পানি খেয়ে ঘুমোন, মাঝ রাতে বার বার গলা শুকিয়ে কাঠ হচ্ছে। বার বার ওঠে পানি খেতে গিয়ে তাই ঘুমটাই হচ্ছে না। রোজই যদি এমন হতে থাকে, তা হলে শিগগির চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

ঘুমের মধ্যে গলা শুকিয়ে যাওয়া বিভিন্ন বড় রোগের প্রাথমিক একটি লক্ষণ হতে পারে। চিকিৎসকদের মতে, এমন কিছু রোগ রয়েছে, যেগুলোর কবলে পড়লেই এ প্রবণতা দেখা যায়।

ডিহাইড্রেশন বা বদহজম যেমন এর অন্যতম কারণ। শরীরে যখন পানির মাত্রা কমে যায় তখনই গলা শুকোতে থাকে। শিশুদের ক্ষেত্রে ডিহাইড্রেশন কিন্তু মৃত্যুর কারণ পর্যন্ত হতে পারে। বেশি ঘাম হওয়া, পেট খারাপ ইত্যাদির জেরেও ডিহাইড্রেশন হতে পারে। তবে হজমের সমস্যা ছাড়াও বেশ কিছু অসুখের কারণেও ঘুমের মধ্যে গলা শুকোয়। এখনই সাবধান হোন সে সব সম্পর্কে।

অতিরিক্ত তেল-মশলাযুক্ত খাবার খেলে বার বার গলা শুকোয়।

ডায়াবিটিসের একটি অন্যতম উপসর্গ হল গলা শুকিয়ে যাওয়া। অতিরিক্ত পরিমাণে মূত্রের জেরে শরীরে পানির সমতা থাকে না। ফলে গলা শুকোয়।

সেপসিস-এর মতো ভয়ানক রোগেরও উপসর্গ এটি। বিভিন্ন ধরনের জীবাণু থেকে শরীরে ইনফেকশনের ফলে এমন প্রভাব পড়ে যে গলা প্রায় শুকিয়ে যায়।

হার্ট, কিডনি অথবা লিভার তার কার্যক্ষমতা হারাতে শুরু করলেও এই সমস্যাগুলো হতে পারে।

যারা অবসাদে ভোগেন তাদের মধ্যে এ প্রবণতা দেখা যায়।

উচ্চ রক্তচাপে ভুগলে তাদের অতিরিক্ত ঘাম হওয়ায় শরীরে পানির মাত্রা ঠিক থাকে না। ফলে গলা শুকিয়ে যায়।

তবে এই রোগগুলো ছাড়াও আরও কয়েকটি প্রাথমিক কারণে রাতে গলা শুকনোর প্রবণতা দেখা যায়। অতিরিক্ত তেল-মশলাযুক্ত খাবার খেলে বার বার গলা শুকোয়। সর্দি হলে বা নাক বন্ধ থাকলে মুখ দিয়ে নিঃশ্বাস নেয়ার প্রবণতা দেখা যায়। ফলে সহজেই মুখের ভেতর শুকিয়ে যায়। এ ছাড়া অতিরিক্ত মদ্যপান যারা করেন তাদেরও বেশি মাত্রায় পানির তৃষ্ণা পায়। অ্যালকোহল শরীরকে শুষ্ক করে তোলে ও পানির চাহিদা তৈরি করে।