১২ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৬শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে রবিবার(৪নভেম্বর) ‘শুকরানা মাহফিল’থেকে কওমি আলেমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘কওমি শিক্ষার্থীদের জননী’ উপাধি দিয়েছেন। অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আলোচনার এক পর্যায়ে জামিয়া ইসলামিয়া দারুল উলুম খাদেমুল ইসলাম গওহরডাঙ্গা মাদরাসা, গোপালগঞ্জ এর অধ্যক্ষ ও অনুষ্ঠানের অন্যতম বক্তা হাফেজ মাওলানা মুফতি রুহুল আমিন বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন অবদানের কথা উপস্থাপন করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা। তিনি কওমি শিক্ষার স্বীকৃতি দিয়েছেন। সমস্ত কওমি শিক্ষার্থীদের মায়ের ভূমিকা পালন করেছেন। আজ প্রধানমন্ত্রীকে কওমি শিক্ষার্থীদের জননী উপাধি দিলাম। তিনি কওমি শিক্ষার্থীদের জননী।

এসময় উপস্থিত লাখ লাখ মানুষের মধ্য থেকে সম্মতির আওয়াজ ভেসে আসে।

পরবর্তী বক্তা হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ পূর্বের বক্তার কথা উল্লেখ করে উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমাদের শ্রদ্ধেয় হুজুর তিনি প্রধানমন্ত্রীকে কওমি জননী উপাধি দিয়েছেন। তাহলে আত্মীয়তার দিক দিয়ে আপনারা কি হন? একটু কথা কইতে হবে। যদি জননেত্রী শেখ হাসিনা জননী হন, আপনারা সন্তান। সন্তানের প্রতি মায়ের যেমন দায়িত্ব আছে, পিতার যেমন দায়িত্ব আছে, মায়ের প্রয়োজনে সন্তানদের দায়িত্ব আছে কিনা? এ দায়িত্ব সম্পর্কে আপনারা কি সজাগ আছেন?  সেই দায়িত্ব পালন করতে আপনারা কি রাজি আছেন?’ এ সময় উপস্থিত অনেকেই হাত তুলে সম্মতি দেন।