১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভারতে  অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে  আটক থাকা  বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন আহমেদকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ের আদালত।

শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) রায় ঘোষণার পর সালাহউদ্দিন আহমেদ নিজেই ফোন করে এ খবর জানিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান।

শায়রুল কবির খান বলেন, সালাহউদ্দিন আহমেদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি বলেছেন কাগজপত্র ঠিক করে শিগগিরই দেশে ফিরে আসবেন।

২০১৫ সালের ১১ মেঅবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে সালাহউদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে মামলা করে মেঘালয় রাজ্যের শিলং পুলিশ। প্রায় সাড়ে তিন বছর বিচার চলার পর এ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়। চলতি বছরের ১৩ আগস্ট ওই মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষ হয়। এরপর তা রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন আদালত।

সালাহউদ্দিন আদালতে বলেছেন, ২০১৫ সালের মার্চে তাকে ঢাকার উত্তরার বাসা থেকে অপহরণ করা হয়। এর প্রায় দুই মাস পর কে বা কারা তাকে শিলংয়ে ফেলে যায়।

সালাহউদ্দিন আহমেদ ১৯৯১ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার এপিএস ছিলেন। এরপর প্রশাসনের চাকরি ছেড়ে তিনি রাজনীতিতে আসেন। ২০০১ সালে সালাহউদ্দিন আহমেদ কক্সবাজার থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বিএনপি ক্ষমতায় এলে তিনি যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী হন।

ভারতে আটকের সময় সালাহউদ্দিন আহমেদ বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ছিলেন। আটক অবস্থায় বিএনপির ষষ্ঠ কাউন্সিলে তিনি দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের সদস্য মনোনীত হন।