১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার সমাবেশে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট  গ্রেনেড হামলাকারীদের মৃত্যুদণ্ড চেয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

মঙ্গলবার (২১ আগস্ট) গ্রেনেড হামলার ১৩ বছর উপলক্ষে নগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, জাতি যুদ্ধাপরাধী ও বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনীদের ফাঁসির দড়িতে ঝুলতে দেখেছে। এবার ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার মূলপরিকল্পনাকারী ও চিহ্নিত ঘাতকদের ফাঁসির দড়িতে ঝুলতে দেখতে চায়।

তিনি আরও বলেন, আজ দিবালোকের মত সত্য দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত ও পলাতক আসামি তারেক রহমানই ষড়যন্ত্র ও লুণ্ঠনের আস্তানা হাওয়া ভবনে বসে বঙ্গবন্ধু তনয়া শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছিলেন। প্রাণঘাতী এ গণহত্যাকাণ্ডের অপরাধে শাস্তি মৃত্যুদণ্ড ছাড়া আর কিছুই হতে পারে না।

সভায় নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর পরিবার বাঙালি জাতিসত্তার পবিত্র আমানত। আমাদের জীবন বাজি রেখে এ আমানত রক্ষা করতে হবে।

তিনি বলেন, চক্রান্তকারীরা বসে নেই। তারা নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য ধ্বংসের খেলায় মেতে ওঠতে পারে। তাই সময় থাকতে পাল্টা আঘাতের প্রস্তুতি নিতে হবে।

ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এম. রেজাউল করিম বলেন, উপমহাদেশে আওয়ামী লীগই একমাত্র গণসংগঠন- যা একটি বিশাল মহীরুহ এবং ভয়াল ও ভয়ঙ্কর ঝড়-ঝাপটায় কখনো শিকড়চ্যুত হয় নি। যারা শেকড় ওপড়ে ফেলতে চেয়েছে তারাই ধরাশারী হয়ে ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।

নগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, এডভোকেট সুনীল কুমার সরকার, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী প্রমুখ।

সভা শেষে কর্ণফুলী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবদুর রহমান ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন ।

আর পড়ুন:   স্বর্ণের দাম কমলো