১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ন্যূনতম মজুরি ১৮ হাজার টাকা অবিলম্বে নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ সেইসঙ্গে মজুরি বোর্ড প্রদত্ত গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য মালিক প্রতিনিধি সরকার মনোনীত শ্রমিক প্রতিনিধির মজুরি প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে পরিষদটি

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক সমাবেশে দাবি জানানো হয়। সমাবেশে বক্তারা বলেন, পেস্কেল রাষ্ট্রায়ত্ত কলকারখানার শ্রমিকদের মজুরির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ মজুরি না বাড়ানো হলে গার্মেন্টস শ্রমিকদের প্রতি বৈষম্য করা হবে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে মজুরি বোর্ড গঠিত হয়। আমরা আশা করেছিলাম, শ্রমআইন অনুযায়ী মাসের মধ্যে মজুরি ঘোষণা করা হবে। আমরা ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করেছি কিন্ত ৩১ জুলাই পর্যন্ত গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি ঘোষণা করেনি বোর্ড। মজুরি ঘোষণা করতে যত দেরি হবে তত মালিকদের সুবিধা বাড়বে, যা শ্রমিক অসন্তোষের জন্ম দেবে

তারা বলেন, মজুরি বোর্ডে মালিকপক্ষের প্রতিনিধি মজুরির যে প্রস্তাবনা জমা দিয়েছে তার প্রকৃত আর্থিক মূল্য বিদ্যমান মজুরির চেয়ে কম। এটি প্রকৃতপক্ষে মজুরি বৃদ্ধির পরিবর্তে শ্রমিকদের প্রকৃত মজুরি কমাবে, শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি করে সরকারকে বিভ্রান্ত করবে, আর শ্রমিকদের দাবির ন্যায্যতা আড়াল করার চক্রান্ত চলছে

তারা আরও বলেন, মালিকদের ষড়যন্ত্রমূলক আচরণে গার্মেন্টস শ্রমিকদের মধ্যে যদি অসন্তোষ দেখা দেয়, আর এর অজুহাতে কোনো গার্মেন্টস শ্রমিককে হয়রানি, নির্যাতন বা ছাঁটাই করা হয়, তাহলে মালিকদের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক জোটের সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সদস্যসচিব নাইমুল আহসান জুয়েল, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক কামরুল আহসান, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি আহসান হাবিব বুলবুল, সহসভাপতি খালেকুজ্জামান লিপন প্রমুখ