১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে প্রগতি চাকমা আনারস প্রতীক নিয়ে ১৪ হাজার ৪৮৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রণতি রঞ্জন খীসা (কাপ পিরিচ) পেয়েছেন ৮ হাজার ১৫ ভোট। নির্বাচনে অপর প্রার্থী কল্পনা চাকমা ( দোয়াত কলম) পেয়েছেন ৪৩৬ ভোট।
এতে নানিয়ারচর উপজেলায় আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) সংস্কারপন্থী গ্রুপের প্রগতি চাকমার জয় হয়েছে। পরাজয় বরণ করেছেন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট ইউপিডিএফ’র সমর্থিত প্রার্থী প্রণতি রঞ্জন চাকমা। ভোট গণনা শেষে রাঙামাটি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটানিং অফিসার আবদুল লতিফ শেখ এ ফলাফল ঘোষণা করেন। সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এডভোকেট শক্তিমান চাকমাও ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) সংস্কার পন্থী গ্রুপের নেতা। সর্ব্বোচ্চ এবং নজিরবিহীন কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচন গতকাল (২৫জুলাই) সুষ্ঠুভাবেভাবে সম্পন্ন  হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলে। নির্বাচন নির্বিঘ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পুলিশ, আনসারের পাশাপশি প্রত্যেক কেন্দ্রে পর্যাপ্ত সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব মোতায়েন ছিল।
নানিয়ারচর উপজেলায় মোট ভোটার ৩২,৮৫৪ জন। উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ১৪টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হয়। সবকটি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণের খবর পাওয়া যায়। কয়েকটি কেন্দ্রে একপ্রার্থী ও তার সমর্থকদের ভোটদানে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ ছাড়া কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। শুধুমাত্র সাবেক্ষং ইউনিয়নে মরাচেঙ্গীমুখ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বহিরাগতরা কেন্দ্র দখলের চেষ্টা চালালে কিছু সময়ের জন্য ভোট গ্রহণ বন্ধ থাকে। তবে নির্বাচন নির্বিঘ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ছিলেন তৎপর। ফলে কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে নি বহিরাগতরা।
প্রশাসনিক ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেছেন, ভোট সম্পূর্ণ সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোটাররা অবাধে নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। নির্বাচনে তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তারা হলেন, প্রগতি চাকমা (আনারস), প্রণতি রঞ্জন খীসা (কাপ-পিরিচ) ও কল্পনা চাকমা (দোয়াত-কলম)।
রাঙামাটি জেলা নির্বাচন অফিস জানায়, নানিয়ারচর উপজেলার মোট চার ইউনিয়নে সর্বশেষ তালিকায় ভোটার সংখ্যা হচ্ছে ৩২ হাজার ৮৫৪। তন্মধ্যে পুরুষ ১৭০০৮ এবং নারী ১৫৮৪৬ জন। সকাল ৮টা হতে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ১৪ কেন্দ্রে টানা ভোটগ্রহণ শেষে কেন্দ্রে কেন্দ্রে গণনা করা হয়। কেন্দ্রগুলোর মধ্যে ছিল সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নে ৪টি, নানিয়ারচর সদর ইউনিয়নে ৪টি, বুড়িঘাট ইউনিয়নে ৪টি এবং ঘিলাছড়ি ইউনিয়নে ২টি।
নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, নির্বাচনে সম্পূর্ণ সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে প্রতিকেন্দ্রে ১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতয়েন ছিল। নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্দেশে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার ছিল।
ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের হাজাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নিয়োজিত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও রাঙামাটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমনী আক্তার বলেন, ভোট সম্পূর্ণ সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল থেকে তাঁর কেন্দ্রে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিয়েছেন ভোটাররা। ভোট দিতে কোনো সমস্যা হয়নি বলে জানান, ঐ কেন্দ্রে ভোট দিতে যাওয়া ভোটাররাও।
সকালের দিকে ভোটগ্রহণ শুরুর পরপরই ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের হাজাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, ঘিলাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ কয়েকটি কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, ভোটারদের দীর্ঘসারি। ভোট দিচ্ছেন উৎসবমুখর পরিবেশে। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দুপুরের দিকে বুড়িঘাট ইউনিয়নের বগাছড়ি পুনর্বাসন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, নানিয়ারচর সদর ইউনিয়নের নানিয়ারচর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র, তৈচাকমা হেডম্যানপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র ও সাবেক্ষ্যং ইউনিয়নের রতœসিংহ কারবারিপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ কয়েকটি কেন্দ্রে তার সমর্থিত ভোটারদের ভয়ভীতি দেখিয়ে ভোটদানে বাঁধা দেয়া হয়েছে বলে প্রতিপক্ষ আনারস প্রতীকের সমর্থকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন, কাপ-পিরিচ প্রতীকের প্রার্থী প্রণতি রঞ্জন খীসা ও তার সমর্থকরা।
অভিযোগ অস্বীকার করে আনারস প্রতীকের প্রার্থী প্রগতি চাকমা বলেছেন, এমন অভিযোগ অবান্তর। ভোট সম্পূর্ণ সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ হয়েছে।
উল্লেখ্য, ৩ মে নিজ কার্যালয়ের সামনে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট শক্তিমান চাকমা। এতে পদটি শূন্য হওয়ায় ১১ জুন উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও নানিয়ারচর উপজেলা রিটানিং অফিসার আবদুল লতিফ শেখ।

আর পড়ুন:   বিআইটিআইডিতে ৪জনের করোনা পজেটিভ