৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ২০শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বর্তমান সরকারকে ক্ষমতা থেকে অপসারণে জাতীয় ঐক্যের বিকল্প কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

শুক্রবার(৫ অক্টোবর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) ‘চেতনায় বাংলাদেশ’ নামক একটি সংগঠনের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন: কোন পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, তারা পাঁচটি দাবিতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। এই জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই উপযুক্ত কর্মসূচি দেওয়া হবে। এমন কর্মসূচি দেওয়া হবে যার মাধ্যমে সরকারে পরিবর্তন আনা সম্ভবপর হবে। পরিস্থিতি বলে দেবে কী ধরনের কর্মসূচি দিতে হবে। তবে কখন কর্মসূচি দেওয়া হবে তার সময় নির্ধারণ করা সম্ভবপর নয়।

তিনি বলেন, এই সরকারকে অপসারণ করতে হলে জাতীয় ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। সেজন্য এই জাতীয় ঐক্যে সব গণতান্ত্রিক-রাজনৈতিক দল, নেতা, শ্রেণি— সবাইকে সংযুক্ত করে দাবি আদায় করতে হবে। আগামী এক মাসেই অনেক পরিবর্তন দেখা যাবে। সরকার একতরফাভাবে যতই প্রচারণা করুক না কেন তাতে কোনো লাভ নেই।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকারে থাকলে সব সময় মনে করে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত তারা ক্ষমতায় থাকবেন। কিন্তু রাজনীতি একটি গতিশীল বিজ্ঞান। কিছুই করতে পারবে না। এক মিনিটের ব্যবধানে সরকার বাধ্য হবে সংলাপে বসতে, বাধ্য হবে তাদের দাবি মেনে নিতে।

মওদুদ বলেন, বাংলাদেশে নির্বাচন করার ন্যূনতম পরিবেশ এখন নেই। পরিবেশকে নষ্ট করার জন্য সরকার একটি পরিকল্পনা নিয়েছে। যার কারণে শুধু রাজনীতি নয়, সারাদেশের ওয়ার্ড লেভেল পর্যন্ত বিএনপির যত সক্রিয় নেতাকর্মী আছেন তাদের সবাইকে ধড়পাকড় করছে। এমনকি রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় একটা মামলায় তাকেসহ দলের শীর্ষ পর্যায়ের সব নেতাকে আসামি করা হয়েছে। কাল্পনিক, ভুতুড়ে, মিথ্যা, যে ঘটনা ঘটেনি তাই সাজিয়ে একটা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নির্বাচনকালীন সরকার বলে সংবিধানে কিছু নেই দাবি করে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, সরকার এরকম একটা সরকারের কথা বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে। মানুষকে ভুল বোঝানোর জন্য এটা বলা হচ্ছে। যারা আছে তারাই থাকবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি দোহার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শামীমা রহিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ফরহাদ হালিম ডোনার, সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ারুল আজীম, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন প্রমুখ বক্তব্য দেন।