[bangla_date] || [english_date]

নিজস্ব প্রতিবেদক *

মাইজভাণ্ডারী গানের কিংবদন্তী সাধক রমেশ শীলের ৫৭তম মহাপ্রয়াণ বার্ষিকী উপলক্ষে বক্তব্য রাখছেন সাবেক মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম

বাংলা কবিগানের অন্যতম রূপকার মাইজভাণ্ডারী গানের কিংবদন্তী সাধক রমেশ শীলের ৫৭তম মহাপ্রয়াণ বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম নানা কর্মসূচি পালন করেন। কবির মহাপ্রয়াণ দিবসে তাঁর পূর্ব গোমদণ্ডীস্থ স্মৃতি সৌধের সামনে তাঁর জীবনচরিত আলোচনা, মাইজভাণ্ডারী গানের আসর, পরিবার-পরিজনের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ, প্রয়াতের স্মৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, পরিবার পরিজনের মাঝে বস্ত্র উপহার প্রদান, খাবারের আয়োজনসহ নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। সাবেক মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম ৭ এপ্রিল দুপুরে কবি’র বাড়িতে গিয়ে এসব কর্মসূচি সম্পন্ন করেন। কবি’র বাড়িতে অনুষ্ঠিত রমেশ শীলের জীবনচরিত আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে

মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেন, ১১ বছর বয়সে রমেশ শীল পিতৃহীন হলে তিনি লেখাপড়া ছেড়ে দেন। জীবন সংগ্রামের এক পর্যায়ে যুবক বয়সে তিনি অসম্প্রদায়িক ও মানবিক চেতনায় যুক্ত হন। আন্তর্জাতিক সমস্যা সম্পর্কে কবিয়াল রমেশ শীল সচেতন ছিলেন। তাঁর গানের বাণী ছিল শান্তির পক্ষে। মনজুর আলম আরো বলেন, বাংলা কবি গানের অন্যতম এ রূপকার মাইজভাণ্ডারী গানের কিংবদন্তী সাধক। কবিয়াল রমেশ শীলের মহাপ্রয়ানের কর্মসূচিতে মনজুর আলমের সুযোগ্য পুত্র সমাজসেবক ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব মোহাম্মদ সাইফুল আলম, সাবেক অধ্যক্ষ বাদশা আলম, আবুল হাশেম মাইজভাণ্ডারী সিরাজ মাইজভাণ্ডারী, কবি’র পরিবারের চিত্তরঞ্জন সরকার, নেপাল কুমার শীল, ড. ননী গোপাল শীল, কাজল শীল, দুলাল শীল, সুলাল শীল, জাপান শীল, গোপাল শীল, মৃণাল শীল ও কল্পতরু সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।