১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

পরিবার-পরিকল্পনা এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমে অসামান্য অবদানের জন্য ২০১৭-১৮ সালে জাতীয় পর্যায়ে “শ্রেষ্ঠ বেসরকারি সংস্থা (ক্লিনিক)” এর পুরস্কার অর্জন করেছে চট্টগ্রামের স্বনামধন্য বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মমতা।

গত ১১ জুলাই রাজধানী ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস ২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে পুরস্কার প্রদান  অনুষ্ঠানে প্রধানঅতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি। প্রধানঅতিথির হাত থেকে শ্রেষ্ঠ বেসরকারি সংস্থা (ক্লিনিক) পুরস্কার গ্রহণ করেন মমতা’র প্রধান নির্বাহী আলহাজ্ব রফিক আহমেদ।

স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব জি এম সালেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহেদ মালেক এমপি।

অতিথি ছিলেন ইউএনএফপির দেশীয় প্রতিনিধি, মহাপরিচালক  স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং সচিব, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। স্বাগত বক্তব্য দেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সরোয়ার।

এদিকে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস ২০১৮ উপলক্ষ্যে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিভাগীয় এবং চট্টগ্রাম জেলা পর্যায়েও শ্রেষ্ঠ বেসরকারী সংস্থা (ক্লিনিক) পুরষ্কার লাভ করেছে মমতা। চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় এর ব্যবস্থাপনায় পরিবার পরিকল্পনার চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক ও যুগ্নসচিব মুহাম্মদ নুরুল আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানঅতিথি অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) ও যুগ্নসচিব মো. নুরুল আলম নিজামীর হাত থেকে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ সংগঠন (ক্লিনিক) এর পুরষ্কার গ্রহণ করেন যথাক্রমে মমতা’র পরিচালক (সমন্বয়) স্বপ্না তালুকদার, মমতা মাতৃসদন লালখান বাজার এর কন্সাল্ট্যান্ট ডা. মোর্শেদা বেগম।

উল্লেখ্য, অতীতে ১৯৯১, ১৯৯৯, ২০০০, ২০০২, ২০০৭, ২০১০, ২০১২, ২০১৩, ২০১৬ এবং ২০১৭ সালেও পরিবার পরিকল্পনা এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্য কর্মসূচিতে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে বেসরকারি সংগঠন হিসেবে “শ্রেষ্ঠ সংগঠন” এর পুরস্কার অর্জন করেছিল মমতা।

জাতীয়, বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে অনেকটা ধারবাহিকভাবে বেসরকারী সংস্থা হিসেবে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মমতা’র প্রধান নির্বাহী ও লায়ন্স-এর  চট্টগ্রাম জেলার সাবেক গভর্নর রফিক আহমেদ বলেন, মমতা সর্বদা সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে নিবেদিত হয়ে কাজ করে এবং সেই কাজেরই স্বীকৃতিস্বরূপ আমাদের এ অর্জন। আমাদের নিবেদিত দক্ষ পরিচালনা, ডাক্তার, কর্মীরা মানবিক মূল্যবোধের বিবেচনায় সেবা দিয়ে আসছেন। এ পুরষ্কার শুধু সংস্থা হিসেবে মমতা’র একার নয় বরং এটি পুরো চট্টগ্রামবাসীর অর্জন।