[bangla_date] || [english_date]

সৌদীআরব প্রতিনিধি *

সৌদি আরবে বসবাসরত প্রবাসীদের বৈধপথে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স প্রেরণের আহবান জানিয়েছেন সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পটোয়ারী বিপিএম (বার)। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সৌদি আরবের রিয়াদস্থ বাংলাদেশে দূতাবাসে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস, ২০২৩ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত এই আহবান জানান। এ উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পটোয়ারী সৌদি প্রবাসী সকল বাংলাদেশীকে শুভেচ্ছা জানান এবং জাতীয় অর্থনীতিতে তাদের অবদানের জন্য প্রশংসা করেন।

দূতাবাসের অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন প্রবাসীবান্ধব সরকার কর্তৃক প্রবাসীদের কল্যাণে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তাছাড়া জাতীয় অর্থনীতিতে প্রবাসীদের অবদানের স্বীকৃতি প্রদান করতে প্রতিবছর ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় প্রবাসী দিবস ঘোষণা করায় আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

রাষ্ট্রদূত বলেন, সৌদি আরব বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রম বাজার। বর্তমানে সৌদি আরবে প্রায় ২৮ লক্ষ প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মী কর্মরত রয়েছেন। ২০২৩ সালে (জানুয়ারি-

নভেম্বর পর্যন্ত) সৌদি আরবে ৪,৫১,৫০২ জন কর্মী কাজের ভিসায় আগমন করেছেন-যা চলতি বছরে মোট বৈদেশিক কর্মসংস্থানের ৩৭%। তাছাড়া ২০২৩ সালে (জানুয়ারি- নভেম্বর পর্যন্ত) সৌদি আরব হতে বাংলাদেশে রেমিটেন্স প্রেরিত হয়েছে ২.৯২৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার যা মোট রেমিটেন্সের ১৬%।

তিনি বলেন, সৌদি প্রবাসী কর্মীদের জাতীয় অর্থনীতিতে আরো বেশী অবদান রাখার সুযোগ আছে। দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সৌদি আরবে অধিকতর বেতনে চাকুরির সুযোগ গ্রহণ এবং সৌদি আরবের আইন-কানুন ও সামাজিক রীতি নীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করার ক্ষেত্রে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখার জন্যও রাষ্ট্রদূত সকল সৌদি প্রবাসীর প্রতি আহবান জানান।

এছাড়া আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু চত্বরে প্রবাসী কর্মীদের জন্য ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প চালু করা হয়েছে। বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান সানসিটি ক্লিনিক দায়িত্ব নিয়ে ফ্রি মেডিকেল ব্যবস্হা গ্রহণ করে। রাষ্ট্রদূত স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণকারী এবং অন্যান্য সেবা প্রার্থীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। রাষ্ট্রদূত দূতাবাসে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে প্রবাসীদের সেবায় আরো আন্তরিকভাবে কাজ করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। প্রবাসী কর্মীগণ দূতাবাসে সেবার গুণগত মান বৃদ্ধি করায়  রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানান।