[bangla_date] || [english_date]

নিজস্ব প্রতিবেদক *

কোটা বাতিলে এক দফা দাবি আদায়ে সরকারকে ৩ দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে বাংলা ব্লকেড প্রত্যাহার করেছেন কোটা আন্দোলনকারীরা। সোমবার (৮ জুলাই) রাতে রাজধানীর শাহবাগে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের পক্ষ থেকে এ সময় বেঁধে দেয়া হয়।

আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার (৯ জুলাই) কোনো কর্মসূচি পালন করবেন না তারা। তবে অনলাইন-অফলাইনে প্রচার-প্রচারণা চালাবেন। এছাড়া দেশব্যাপী ছাত্র ধর্মঘট এবং ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানান কোটাবিরোধীরা।

আন্দোলনকারীরা জানান, ৯ জুলাই ব্লকেড কর্মসূচি থাকবে না। ছাত্র ধর্মঘট এবং ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি পালন করা হবে। বেঁধে দেয়া সময়ে দাবি আদায় না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন তারা।

তবে পরদিন বুধবার (১০ জুলাই) আবারও অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচির পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন কোটা বিরোধীরা। আগের দিন (মঙ্গলবার) সংবাদ সম্মেলনে সেই কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। এদিন গণসংযোগ কর্মসূচি চলবে।

আন্দোলনকারীদের এক দফা দাবিতে বলা হয়েছে, সরকারি চাকরিতে সব গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষম্যমূলক কোটা বাতিল করে শুধু সংবিধান অনুযায়ী অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জন্য ন্যূনতম কোটা রেখে সংসদে আইন পাস করতে হবে।

এর আগে বিকেলে ‘বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন’ ব্যানারে ঐক্যবদ্ধ শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীরা রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়ক অবরোধ করেন। তাদের ‘বাংলা ব্লকেডে’ যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েন রাজধানীবাসী।

বিক্ষোভ চলাকালে শিক্ষার্থীরা নানা স্লোগান দেন। এগুলোর মধ্যে ছিল ‘দফা এক দাবি এক, কোটা নট কাম ব্যাক’, ‘মেধাবীরা দিচ্ছে ডাক, কোটাপ্রথা নিপাত যাক’, ‘সংবিধানের মূলকথা, সুযোগের সমতা’, ‘মেধা না কোটা, মেধা মেধা’, ‘বৈষম্যের বিরুদ্ধে, ডাইরেক্ট অ্যাকশন’ প্রভৃতি। স্লোগানের পাশাপাশি চলে বক্তব্য, কবিতা আবৃত্তি ও গান  ।