[bangla_date] || [english_date]

রোটারি আন্তর্জাতিক জেলা-৩২৮২ এর উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উদযাপন ও রোটারিয়ান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান

গতকাল ১৬ ডিসেম্বর, রোটারি আন্তর্জাতিক জেলা-৩২৮২ এর উদ্যোগে রোটারি ক্লাব অব ইসলামাবাদ এর স্বাগতিকতায়  মহান বিজয় দিবস উদযাপন ও রোটারিয়ান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আইইবি, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এই উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি হিসেবে বিকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ম্যুরালে ফুলের শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার মো. মতিউর রহমান ও ডিস্ট্রিক্ট ফাস্ট লেডি পিপি সামিনা ইসলাম, মহান বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি পিপি প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুন, ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারি পিপি মোহাম্মদ আকবর হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ চট্টগ্রাম কেন্দ্রের চেয়ারম্যান পিপি প্রকৌশলী এম এ রশিদ, পিপি ওসমান গনি মুনসুর, ডিস্ট্রিক্ট ট্রেজারার পিপি আসাদুল হক, চীফ সার্জেন্ট এ্যট আর্মস্ সিপি মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম নান্টু, সিপি আবু হাসনাত চৌধুরী, রেজিস্ট্রেশন চেয়ার পিপি সুদীপ কুমার চন্দ, পিপি মাইনুদ্দিন রতনসহ আরো অনেকে।

বিজয় দিবসে সংবর্ধিত ৯ রোটারিয়ান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রধান অতিথি ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার মো. মতিউর রহমান

সন্ধ্যায় মুক্তিযুদ্ধ তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রোগ্রাম চেয়ার পিপি প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার মো. মতিউর রহমান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিডিজি এম এ আউয়াল উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত পাঠ করেন পিপি মো. ইসহাক চৌধুরী, রোটারি ইনভোকেশন পাঠ করেন আয়োজক ক্লাব’র প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান সুমন বড়ুয়া, ০৯ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা স্মারক ও উত্তরীও পড়িয়ে দেন ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার মো. মতিউর রহমান ও মঞ্চে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ।

সংবর্ধিত রোটারিয়ান বীর মুক্তিযোদ্ধারা হলেন, রোটারিয়ান পিপি ডা. মইনুল ইসলাম মাহমুদ, রোটারিয়ান পিপি অধ্যাপক ড. এএফএম ইমাম আলী, রোটারিয়ান পিপি মেজর মোস্তফা, রোটারিয়ান পিপি হরেন্দ্র কুমার নাথ, রোটারিয়ান পিপি মুসা কলিমুল্লাহ কিসলু, রোটারিয়ান ডা. মোহাম্মদ সরফরাজ খান, রোটারিয়ান এম এ ফয়েজ ভূঁইয়া, রোটারিয়ান অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী মফজল আহমেদ । সংবর্ধিত অতিথিরা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত ঘটনা স্মৃতিচারণ করেন।

প্রধান অতিথি জেলা গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার মো. মতিউর রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সেইসব বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আমরা গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করছি। স্মরণ করি, মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লক্ষ শহীদদের। আমরা গর্ভবোধ করছি, রোটারিয়ানদের মধ্যেও অনেক বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় তাঁদের মানবিক কার্যক্রম এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন। মানুষের কল্যাণে রেখে যাচ্ছেন, প্রশংসনীয় ভূমিকা। আজকের বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে তাঁদের মধ্যে ০৯জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মান জানাতে পেরে আমরা গর্ববোধ করছি। আমরা অনেকে মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি। মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ পেয়েছি কিন্তু এরজন্য জাতিকে চরমমূল্য দিতে হয়েছে। আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত রোটারিয়ান মুক্তিযোদ্ধাদের তাঁদের অনেক গৌরবগাঁথা এবং মুক্তিযুদ্ধের জানা-অজানা সত্যিকার ইতিহাস, আজকের বাস্তবতায় আগামী প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস ও চেতনা তুলে ধরার দায়িত্ব আমাদের। এজন্য দরকার মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণা কাজ এবং এর সাথে বর্তমান প্রজন্মের আগ্রহী তরুণদের ব্যাপকভাবে যুক্ত করা।রোটারিয়ানরা এই কাজে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারবে বলে আমারা বিশ্বাস করি।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ডিজিএম পিপি ডা. মইনুল ইসলাম মাহমুদ, ডিস্ট্রিক্ট ফাস্ট লেডি পিপি সামিনা ইসলাম, ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারি পিপি মোহাম্মদ আকবর হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ চট্টগ্রাম কেন্দ্রের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী এম এ রশিদ, ধন্যবাদ বক্তব্য রাখেন পিপি ওসমান গনি মনসুর।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারী রোটারিয়ান পিপি শামসুল হক, এরিয়া ডাইরেক্টর রোটারিয়ান পিপি জাহিদা আকতার মিতা, জোনাল কো-অর্ডিনেটর রোটারিয়ান পিপি জামাল উদ্দীন আহমেদ ও অন্যান্য দুই শতাধিক রোটারিয়ানবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।