২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

নির্বাচনকে সামনে রেখে বিপুল পরিমাণ টাকা সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এ সব টাকা হুন্ডির মাধ্যমে দুবাই থেকে বাংলাদেশে এসেছে।

মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলে সিটি সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সিটি সেন্টার থেকে টাকাসহ ব্যবসায়ী আলী হায়দার ‍ও আরো দুজনকে আটক করে র‌্যাব। আলী হায়দার আমদানি-রফতানি ও ঠিকাদারি কোম্পানি ইউনাইটেড কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

আটক অন্যরা হলেন- গুলশানের আমেনা এন্টারপ্রাইজের জয়নাল ও ইউনাইটেড কর্পোরেশনের অফিস ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন। এদের মধ্যে জয়নাল একসময় হাওয়া ভবনের সাবেক কর্মচারী ছিলেন।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, তাদের কাছ থেকে নগদ আট কোটি টাকা এবং ১০ কোটি টাকার চেক পাওয়া গেছে। টাকার সঙ্গে তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত এক বিএনপি নেতার লিফলেটও উদ্ধার করা হয়। এরই মধ্যে ১৪ কোটি কালো টাকা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

র‌্যাব মহাপরিচালক জানান, সবশেষ শরীয়তপুর-৩ আসনের বিএনপির প্রার্থী মিয়া নুরুউদ্দিন অপুকে সাড়ে তিন কোটি টাকা পাঠানো হয়েছে। টাকা পাঠানোর তথ্যপ্রমাণ পেয়েছে র‌্যাব। এছাড়া চট্টগ্রামসহ আরও কয়েকটি জেলায় টাকা পাঠানো হয়েছে।

র‌্যাব সদর দফতরের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, আলী হায়দার টাকা ছড়িয়ে নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টায় ছিলেন।