২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

সারা দেশের মতো চট্টগ্রামেও প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্য বই বিতরণ করা হয়েছে। বছরের প্রথম দিন বই হাতে হাসিমুখে বাড়ি ফিরেছে শিশুরা। বুধবার (১ জানয়ারি) সকাল থেকে নগর ও জেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় বই উৎসব।

সকাল ১০টার ঘরে তখন ঘড়ির কাঁটা। চট্টগ্রাম জামালখানস্থ  ডা. খাস্তগীর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের প্রচণ্ড ভিড়। নতুন বছরের প্রথম দিনে নতুন বইয়ের ঘ্রাণ নিতে উৎসুক তারা।

বেলা পৌনে ১১টার দিকে জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন স্কুলে এসে পৌঁছানোর পর শেষ হয় তাদের অপেক্ষার পালা। বেলা ১১টার দিকে অতিথিদের সঙ্গে নিয়ে বই উৎসব-২০১৯ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তিনি।

এর পরপরেই নতুন বই হাতে নিয়ে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসে মেতে উঠেন শিক্ষার্থীরা। হাসিখুশি শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাসে পুরো বিদ্যালয়ে সৃষ্টি হয় উৎসবমুখর পরিবেশ। শুধু শিক্ষার্থীরা নয়, আনন্দের ঝিলিক ছিল শিক্ষক ও অভিভাবকের মুখেও।

তবে শুধু ডা. খাস্তগীর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় নয়, বছরের প্রথম দিনেই চট্টগ্রামের ২ হাজার ৬৬টি মাধ্যমিক এবং ৪ হাজার ৭৩০টি প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে পৌঁছে গেছে নতুন বই।

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন জানান, ‘চট্টগ্রামের ২০ টি থানা ও উপজেলার ২ হাজার ৬৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় পৌনে ১২ লাখ শিক্ষার্থীর হাতে মাধ্যমিকের ১ কোটি ৫২ লাখ ৪৮ হাজার ৮৮১ টি নতুন বই পৌঁছে দেয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশনায় প্রতিটি শিক্ষার্থী যাতে নতুন বই পায় সে ব্যবস্থা আমরা করেছি।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা  জানান, নগর ও জেলার সরকারি-বেসরকারি ৪ হাজার ৭৩০টি প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেন স্কুলের প্রায় ১০ লাখ শিক্ষার্থীর হাতে প্রায় ৪৮ লাখ নতুন বই আমরা পৌঁছে দিয়েছি। বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীরা নতুন বই হাতে পেয়েছে।