[bangla_date] || [english_date]

নিজস্ব প্রতিবেদক *

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সাথে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান

নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করলে বা কোনো ধরনের গুজব ছড়ালে ছাড় নেই। আচরণবিধি মেনেই নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা চালাতে হবে। আচরণবিধি পর্যবেক্ষণে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবে।

সোমবার (২৯ এপ্রিল) সকালে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক (ডিসি) আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান এসব কথা বলেছেন।

জেলাপ্রশাসক বলেন, আগামী ৮ মে চট্টগ্রামের মীরসরাই সীতাকুণ্ড ও সন্ধীপ উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো আসন্ন উপজেলা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে প্রত্যেক প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদেরকে নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলতে হবে, অন্যথায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, কেউ জাল ভোট দিতে আসলে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর এজেন্টগণকে চ্যালেঞ্জ করতে হবে। তাদের নিরাপত্তা আমরা দেব। গত সংসদ নির্বাচনে জাল ভোট দেয়ার অপরাধে জেল দেয়া হয়েছে। জাল ভোট প্রদান, কেন্দ্র দখল বা অন্যান্য অজুহাতে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করতে কেউ কোনো ধরণের গুজব ছড়ালে ছাড় নেই। নির্বাচনে নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সবর্দা আপনাদের পাশে থাকবে। নির্বাচনে কোনো অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না।

জেলা প্রশাসক বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না থাকার কারণে সন্ধীপে নির্বাচনের আগের দিন ব্যালট পেপার পাঠাবো, আর অন্যান্য উপজেলার কেন্দ্রগুলোতে ভোটের দিন সকালে ভোট গ্রহণের আগে ব্যালট পেপার পাঠানো হবে। এ নির্বাচনে কোনো ধরনের অনিয়ম গ্রহণযোগ্য হবে না। সকাল ৮টায় ভোট গ্রহণ শুরু হবে এবং বিকাল ৪টায় ভোট গ্রহণ শেষ হবে।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, আমাদের একটাই চাওয়া- নির্বাচনকে সুন্দর করতে হবে। যেখানেই কোনও অনিয়ম হবে, কারচুপি বা অন্যায় কার্যক্রম হবে সেখানে প্রিজাইডিং অফিসার ব্যবস্থা নিতে পারবেন। ভোট সুন্দর ও সুষ্ঠু করার জন্য যা যা দরকার সব করবেন।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসনের উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার) লুৎফুন নাহার, আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী, উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ এনামুল হক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট একেএম গোলাম মোর্শেদ খান, জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হোসাইন মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, আনসার ভিডিপির জেলা কমান্ড্যান্ট সাইফুল্লাহ হাবীব, সিএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার অতনু চক্রবর্ত্তী, র‌্যাবের এএসপি মোজাফফর হোসেন, বিজিবির সহকারী পরিচালক উপেন্দ্র নাথ হালদার, মীরসরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহফুজা জেরীন, সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে এম রফিকুল ইসলাম, সন্ধীপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রিগ্যান চাকমা, সীতাকুণ্ড  মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. কামাল উদ্দিন, মিরসরাই থানার ওসি মো. সহিদুল ইসলাম, জোরাগঞ্জ থানার ওসি আবদুল্লাহ আল-হারুন, সন্ধীপ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাকির হোসেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মীরসরাই উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উত্তম কুমার শর্মা, শেখ মো. আতাউর রহমান, সন্ধীপ উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী  শেখ মো. জুয়েল, ফোরকান উদ্দিন আহমদ, সীতাকুণ্ড উপজেলা চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, মো. আরিফুল আলম চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জালাল আহমেদ ও কাজী গোলাম মহিউদ্দিন প্রমুখ।