২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে সকল ছিন্নমূলবাসী যেখানেই আছে সেখানেই থাকবে। যারা পাহাড়ের কিনারায় ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে তাদের সরিয়ে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে।

নামে-বেনামে কেউ জায়গা দখল-বিক্রি করতে পারবে না। ভূমিদস্যুদের কবল থেকে ছিন্নমূলদের রক্ষার ব্যবস্থা করা হবে।

ভূমিদস্যুদের কবল থেকে সরকারি খাস জমি উদ্ধার করে সরকারের গৃহীত মহাপরিকল্পনাগুলো অতি শীঘ্রই বাস্তবায়ন করা হবে।

রবিবার (২৪ জুলাই)  বিকেলে জঙ্গল সলিমপুর কেন্দ্রিক সরকারের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন ও প্রকৃত ভূমিহীনদের পুনর্বাসন সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এসব কথাগুলো বলেন।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ

তিনি বলেন,‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর সুযোগ্য কন্যা, সফল প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে ও নির্দেশনায় বাংলাদেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না।যতদিন জননেত্রী শেখ হাসিনা’র হাতে দেশ পথ হারাবে না বাংলাদেশ।’

জঙ্গল সলিমপুরে পাহাড় কেটে নির্মাণ করা অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়ে ভূমিমন্ত্রী বলেন, ‘এ পাহাড়ের ভূমি থাকবে সরকারি নিয়ন্ত্রণে। তবে এখানে বসবাসকারী সকল প্রকৃত ভূমিহীনদের পুনর্বাসন করা হবে। তাই ভূমিহীনদের কোনো সমস্যা হবে না।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘জঙ্গল সলিমপুরে আর কোনো ভূমিদস্যুতা চলবে না। এই এলাকার বিপুল সরকারি খাস জায়গা নিয়ে সরকার মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে । সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ শুরু হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে আমিও এলাকাটি পরিদর্শনে এসেছি।’ সরেজমিনে আলীনগরে নির্বিচারে পাহাড় কেটে প্লট তৈরি ও অবৈধ বসতি স্থাপনের দৃশ্য মন্ত্রী দেখেন।

চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান এর সভাপতিত্বে ও সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাহাদাত হোসেন এর সঞ্চালনায়  অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চসিক মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) রেজাউল করিম, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক ড. বদিউল আলম, সীতাকুণ্ড উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম আল মামুন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ নাজমুল আহসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এল.এ) মাসুদ কামাল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আশরাফুল আলম।

অনুষ্ঠানের সভাপতি চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, জঙ্গল সলিমপুরের উন্নয়ন পরিকল্পনার অংশ হিসেবে নানানমুখি পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে এখান থেকে সকল অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে। এছাড়া আজ থেকে এখানে আর নতুন করে কোনো বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হবে না। সুষ্ঠু পরিকল্পনার মাধ্যমে পাহাড় কাটা ও প্লট বিক্রি বন্ধ করা হবে।

উল্লেখ্য, পরিবেশ অধিদপ্তর ও প্রশাসনের তদারকির অভাব ও নির্লিপ্ততায়  সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর পাহাড়ি  ভূমিকে ঘিরে  বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী গ্রুপ সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এসব সন্ত্রাসী চক্র অবৈধভাবে কয়েক হাজার একর পাহাড় কেটে প্লট বিক্রির মাধ্যমে বিশাল সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছে । সম্প্রতি এখানে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের গাড়ি বহর থেকে  এক ইউপি সদস্যকে  স্থানীয় সন্ত্রাসী ও ভূমিধস্যু ইয়াছিন মিয়ার বাহিনী তুলে নিয়ে মারধর করলে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ শুরু করে। এরপর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সেখানে আলীনগর এলাকায় সীতাকুণ্ডের সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশরাফুল আলম এর নেতৃত্বে  প্রথমবারের মতো দুঃসাহসিক অভিযান পরিচালিত হয়।

জঙ্গল সলিমপুরের আলীনগরে নির্বিচারে পাহাড় কেটে প্লট তৈরি ও অবৈধ বসতি স্থাপনের দৃশ্য দেখছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান, চসিক মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী ও সীতাকুণ্ড উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম আল মামুন