[bangla_date] || [english_date]

নিজস্ব প্রতিবেদক *

চট্টগ্রাম-১১ আসনের বন্দর থানার ধুপপুল এলাকার নিশ্চিন্তাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিদ্যালয়টি ওই আসনের ৭০ নম্বর ভোটকেন্দ্র। এখানে মোট ভোটার ৩ হাজার ২৯২ জন। এর মধ্যে ১ হাজার ৬২৫ জন পুরুষ এবং ১ হাজার ৬৬৭ জন মহিলা।

শনিবার (৬ জানুয়ারি) ভোর ৫টার দিকে বিদ্যালয়ের তিনতলা ভবনের নিচতলায় প্রধান শিক্ষকের রুমে এ আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। তবে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে তদন্ত সাপেক্ষে পরে জানানো হবে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, আগুনের খবর পেয়ে ভোর ৫টা ১০ মিনিটে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পোঁছে। সকাল ৬টার দিকে আগুন নির্বাপন করতে সক্ষম হয়। আগুনে প্রধান শিক্ষকের রুমে থাকা নতুন বইসহ আনুমানিক ৫০ হাজার টাকার জিনিসপত্র পুড়ে যায়। তবে আগুনে ভোটের সামগ্রীর কোনোরকম ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

এ বিষয়ে বন্দর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. শামীম বলেন, ‘আগুন লাগার কারণ সম্পর্কে এখনও আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। তদন্ত সাপেক্ষে বিস্তারিত পরে জানা যাবে। এ আগুনে আনুমানিক ৫০ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং ১ লাখ টাকার জিনিসপত্র উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যেহেতু এটা ভোটকেন্দ্র অনেক কিছুই হতে পারে। অসম্ভব কিছু না। কিন্তু আমার সেরকম কিছুর আলামত পাইনি। ধারণা করছি শর্ট সার্কিট থেকেও আগুন লাগতে পারে। তাই ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত করে বের করতে হবে।’

এমন ঘটনা এখানে আগে কখনো ঘটেনি জানিয়ে স্কুলটির প্রধান শিক্ষক শুভ্রা রাণী দে সিভয়েসকে বলেন, ‘আমার অফিস রুমের জানালা ভেঙ্গে কেউ হয়ত কিছু একটা দিয়ে আগুন লাগাতে পারে। আর আমাদের স্কুল ভবনটা পুরাতন তাই জানালাগুলোতে ফাটল ছিল। আমি ঠিক জানি না। কখনো এমন ঘটনা ঘটেনি। এখন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মামলা করার জন্য থানায় আসছি।’