২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ || ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

কিছুদিন যাবৎ টাকার যন্ত্রণায় আছেন কিশোরগঞ্জ ৫ আসনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট মনোনীত প্রার্থী পুলিশের সাবেক আইজি নূর মোহাম্মদ।

সাবেক আইজিপি নূর মোহাম্মদ জানান, নির্বাচনী খরচ বাবদ এ আসনের ভোটার ও মাঝারি ও বড় মাপের ব্যবসায়ী,সামর্থ অনুযায়ী নগদ টাকা নিয়ে আসছেন তার কাছে। এমনকি প্রবাসীদের কেউ কেউ ভোটের উদ্দেশে এসেছেন নিজ এলাকায়। তারাও এক থেকে তিন লাখ টাকা দিতে আসছেন। যদিও তারা আমাকে ও নৌকা প্রতীকের প্রতি ভালবাসার টানে, এই টাকা দিতে চাইছেন।

তিনি বলেন, ‘সারা দেশে প্রতিটা প্রার্থী বাবদ নির্দিষ্ট একটা খরচ লাগে। তারপরও এ টাকা উপহারের বিষয়টি আমার কাছে আনইউজিয়াল মনে হয়।’

তিনি আরও বলেন, আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরুর পর থেকে নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ ভোটাররা মিলে অস্থায়ী নির্বাচনী কার্যালয় বানিয়েছেন তাদের ব্যক্তিগত খরচে।

সরেজমিনে কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া নির্বাচনী আসনের একাধিক ওয়ার্ড ইউনিয়নে কোনো কোনো স্থানে দু’ তিনটি কার্যালয় বানানো হয়েছে।

বিভিন্ন বয়সী ভোটারদের বেশিরভাগই নূর মোহাম্মদকে মোটা দাগের ভালো একজন মানুষ হিসেবে চেনেন।

রাজনীতির মাঠে একবারেই নতুন মুখ হলেও জনপ্রিয়তায় ছাড়িয়ে গেছেন অনেককেই।

নূর মোহাম্মদের বাসভবনে কথা হয়েছিল শতবছর পার হয়ে যাওয়া এক বৃদ্ধর সঙ্গে।

এ সময় তিনি বলেন, সারা জীবনে আমি অন্য দলকে ভোট দিয়েছি। হয়তো এইটা আমার জীবনে শেষ ভোট হবে যেটা আমি দেব নূর মোহাম্মদকে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ক্ষমতাসীন দল ও প্রতীকের পাশাপাশি সাবেক এই পুলিশ প্রধান,রাষ্ট্রদূত ও সচিব নূর মোহাম্মদের ব্যক্তি ইমেজ এ আসনের বড় ফ্যাক্টর। আর এ কারণে আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থকদের ধারণা, তিনি এ আসনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন।