১০ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৪শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রামের কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন শনিবার (৮ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হয়েছে। চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আগেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়  রিটজী এপারেলস লিমিটেডের পরিচালক  শিল্পপতি লায়ন মীর্জা মো.আকবর আলী চৌধুরী (খোকন) সভাপতি, হাজী মো. মহিউদ্দিন সিনিয়র সহসভাপতি, নাছির উদ্দিন মানিক সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন হাজী মো. ইউসুফ শাহ, সাংবাদিক লায়ন হাসান আকবর, লায়ন কাজী আলী আকবর জাসেদ, এস.এম তোফায়েল উদ্দিন ও রোটারিয়ান মোহাম্মদ মনোয়ারুল হক এফসিএমএ।

এছাড়া যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লায়ন আলীম উল্যাহ মুরাদ ও আবেদীন আল মামুন ও সাংগঠনিক সম্পাদক- সাংবাদিক মুহাম্মদ আবুল হাসনাত, অর্থ সম্পাদক- লায়ন মফিজুর রহমান সাজ্জাদ, দপ্তর ও মিলনায়তন সম্পাদক- সৌমেন দত্ত, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক-সাংবাদিক কামরুল ইসলাম দুলু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক- আকলিমা আকতার মুক্তা, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন সম্পাদক-লায়ন ড.শাহিদুল আলম মিন্টু, আইন ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক-লায়ন এড. সরওয়ার হোসেন লাবলু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক- লায়ন ইঞ্জিনিয়ার কামরুদৌজা, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্হাপনা সম্পাদক- লায়ন মো. কামাল উদ্দীন ভূঁইয়া, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক-এস.এম তবরেজ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক- মো. মনজুর মোরশেদ চৌধুরী, শিশু ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক- কাজী মাসুদা খানম, সহ শিশু ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক- দিলরুবা আকতার, কৃষি,বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক- অধ্যাপক ড. মো. ওমর ফারুক রাসেল, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক- ইকবাল করিম তুষান নির্বাচিত হয়েছেন।

ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী সীতাকুণ্ড সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদের ৩১টি পদের মধ্যে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ২৬টি পদের প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় বিজয়ী হন। শনিবার ভোটগ্রহণ হয় শুধুমাত্র শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক ও ৪টি সদস্য পদে। শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক পদে ৩৯১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরিচালক অধ্যাপক তাওয়ারিক আলম সুমন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্ধী আইটি ব্যবসায়ী(টেকনো ডট কম) জিয়াউল ইসলাম শিবলু পেয়েছেন ১৭১ভোট।

৪টি সদস্য পদে আলহাজ্ব শফকত পাশা ৪৯৬ ভোট, লায়ন মো. বেলাল হোসেন ৪৯৫ ভোট, স্থপতি শহীদুল ইসলাম ৪৬৪ ভোট এবং লায়ন এস.এম আশরাফুল আলম আরজু ৪৬২ ভোট। তাদের একমাত্র নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী জামশেদ রহমান পান ২৪৭ ভোট। নির্বাচনে ১৪৩৯ জন ভোটারের মধ্যে ৫৬৫ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসাবে দায়িত্বপালন করেন, সিনিয়র আইনজীবী এড. মোহাং আবুল হাসান শাহাবউদ্দিন। সহকারী নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্বপালন করেন আলহজ্ব দিদারুল ইসলাম মাহমুদ ও এডভোকেট ভবতোষ নাথ। প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে দয়িত্ব পালন করেন ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের উপাধ্যক্ষ আহমেদ শাহীন আল রাজী।

নির্বাচন পরবর্তী তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় নবনির্বাচিত সভাপতি লায়ন মীর্জা মো.আকবর আলী চৌধুরী (খোকন) বলেন, আগামীতে এই সংগঠন তার সদস্যদের মাঝে সম্প্রীতি বজায় রাখাসহ সীতাকুণ্ডের মানুষের কল্যাণে কাজ করবো। আর চট্টগ্রাম শহরে সমিতির স্থায়ী ঠিকানা নির্মাণে ভূমিকা রাখবো।

এ সময় সংগঠনের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন মানিক, সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আজম, এম ই আজিজ চৌধুরী লিটন, লায়ন মো. গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।