২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ৮ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় সোমবার সকাল থেকে সব ধরনের নাগরিক সেবা বন্ধ করে দেয় কক্সবাজার পৌর পরিষদ। ফলে ভোগান্তিতে পড়েন সেবা নিতে আসা পৌরবাসী। তবে দুপুর ২টার দিকে পৌর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিতের কথা জানানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ মাহবুবুর রহমান চৌধুরী  বলেন, জেলা প্রশাসনসহ জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, জনপ্রিয় মেয়র মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা মামলা হয়েছে। এ মামলা প্রত্যাহার করা না হলে পৌর পরিষদ পরবর্তীতে আরো কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

রবিবার মধ্যরাতে কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ মাহবুবুর রহমান চৌধুরীর পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মেয়র মুজিবুরের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত কক্সবাজার পৌরসভা কোনও ধরনের নাগরিক সেবা দেবে না। এক জরুরি সভায় পৌর পরিষদ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে তিনি জানান।

এরপর সোমবার সকাল থেকে শহরের পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, চলমান সড়ক উন্নয়ন কাজ এবং জাতীয়তা, জন্ম মৃত্যু সনদ প্রদানসহ পৌরসভার সব ধরনের নাগরিক সেবা বন্ধ হয়ে যায়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন সেবা নিতে আসা লোকজন।

২৭ অক্টোবর রাত পৌনে ৯টার দিকে শহরের সুগন্ধা পয়েন্টে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোনাফ সিকদারকে গুলি করে দুর্বৃত্তরা। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ওই ঘটনায় আহত মোনাফ সিকদারের ভাই শাহাজাহান সিকদার বাদী হয়ে পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, তার ব্যক্তিগত সহকারী এবি ছিদ্দিক খোকন এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরীসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে সদর থানায় একটি মামলা করেন। এতে আরো ৭/৮ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

এদিকে মামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে রবিবার সন্ধ্যা থেকে বিক্ষুব্ধ লোকজন মিছিল সমাবেশ করে ও সড়কে আগুন জ্বালিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। কক্সবাজার শহরের সকল দোকান পাট বন্ধ হয়ে যায়। বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। বিপাকে পড়ে কয়েক হাজার পর্যটকসহ দুর পাল্লার যাত্রীরা। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে যান চলাচল শুরু হয়।

আর পড়ুন:   যতদিন বাঁচবেন এ সরকারের পাশে দাঁড়াতে হবেঃ আবদুল মান্নান

সোমবার সকাল থেকে নাগরিক সেবা বন্ধের ঘোষণা দেয় পৌর পরিষদ।  সকাল থেকে পৌরসভার প্রধান ফটক বন্ধ থাকলে সেবা প্রার্থীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তবে দুপুরে আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেয়া হলে বিকাল ৩টা থেকে ফের নাগরিক সেবাদান শুরু হয়।

পৌর পরিষদের সেবা বন্ধের বিষয়ে কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ ও শহর আওয়ামী লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন কবির বলেন, মেয়র মুজিব জনপ্রিয় নেতা। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল মিথ্যা মামলাটি দায়ের করেছে।

তিনি  আরও বলেন, জেলা আওয়ামী লীগ নেতাসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের অনুরোধে এবং নাগরিকদের অসুবিধার কথা বিবেচনা করে আমরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করেছি। মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার না হলে পরবর্তীতে আবার আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।