চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী আজ বুধবার নগরীর সমুদ্র উপকূলবর্তী কাট্টলিতে প্রস্তাবিত বে-টার্মিনাল যেখানে নির্মিত হবে সে স্থানটিতে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রতিরক্ষা দেয়ায় নির্মাণ এলাকা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শণকালে মেয়র পানি নিষ্কাষণের জন্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নির্মিত স্লুইচগেটের কার্যকারিতা হারাবে এবং পানি চলাচলে বাধাগ্রস্থ হবে বলে মত প্রকাশ করেন। যার ফলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে এতদ এলাকায় পানি আটকে নাগরিক দুভোর্গ সৃষ্টি হবে বলেও মন্তব্য করেন।

সমুদ্র উপকূলবর্তী কাট্টলিতে প্রস্তাবিত বে-টার্মিনাল এলাকায় নির্মাণাধীন প্রতিরক্ষা দেয়াল পরিদর্শন করছেন সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী

তিনি আজ বুধবার সকালে প্রস্তাবিত বে-টার্মিনাল প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন কালে এই বিষয়টি চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে অবগত করিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে তাগিদ দিয়েছিলেন বলে জানান। মেয়র প্রকল্পে দায়িত্বরত চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রস্তাবিত বে-টার্মিনাল বাস্তবায়ন শুধু চট্টগ্রামে নয়, সমগ্র দেশবাসীর প্রাণের দাবী। এই দাবী পূরণে প্রধানমন্ত্রী সাড়া দিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়নে সব ধরণের সহায়তা, কারিগরী, প্রকৌশলগত সমর্থন ও প্রয়োজনীয় বরাদ্দ নিশ্চিত করেছেন। আমরা চাই এই প্রকল্পের দ্রুত বাস্তবায়ন হউক এবং এর ফলে দেশের অর্থনৈতিক সম্বৃদ্ধি অর্জনে অধিকতর পথ সুগম হবে। তবে প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া এমনভাবে চলমান রাখতে হবে যাতে কোনো নতুন সমস্যা ও জনদুভোর্গ সৃষ্টি না হয়। এই বিষয়টি চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হলে তাঁরা আমাকে আশ্বস্থ করে জানিয়েছেন যে, চউক নির্মিত স্লুইচ গেট দিয়ে পানি প্রবাহ যাতে বিঘ্নিত না হয় বা জলজট না ঘটে সে জন্য প্রকৌশল ও প্রযুক্তিগত দিক বিশ্লেষণ ও ধারণা দ্বারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ জরুরী ভিত্তিতে নেয়া হবে। তাই আশা করি প্রস্তাবিত বে-টার্মিনাল প্রকল্প এলাকায় বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রতিরক্ষা দেয়াল নির্মাণের ফলে অত্র এলাকায় পানি আটকে থাকার যে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে তা নিরসণ হবে এবং চউক নির্মিত স্লুইচ গেটের কার্যকারিতা সমুন্নত থাকবে। সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী আরো বলেন, উত্তর কাট্টলী লিঙ্ক রোডের বাম দিকে বিপুল পরিমাণ সরকারি খাস জমি থেকে অবৈধ ইটভাঁটা সহ অনুমোদিত স্থাপনা জেলা প্রশাসন উচ্ছেদ করে দখল মুক্ত করেছে। এ সকল সরকারি খাস জমি সুরক্ষায় এখানে একটি স্মৃতিসৌধ ও ওসেন পার্ক গড়ে তুলতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে একটি প্রকল্প প্রস্তাবণা প্রেরণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। প্রস্তাবিত বে-টার্মিনাল প্রকল্প এলাকায় পরিদর্শনকালে মেয়রের সাথে ছিলেন উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রফেসর ড. নেছার উদ্দিন আহমেদ ও মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

আর পড়ুন:   আগুনে বাবা-মেয়েসহ ৪জন দগ্ধ নারায়ণগঞ্জে  

মেয়রকে টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির স্মারকলিপি

টেরী বাজার ব্যবসায়ী সমিতি’র নেতৃবৃন্দের স্মারক লিপি গ্রহণ করছেন সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী

লকডাউনের আওতামুক্ত রাখা ও সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সময়সূচী নির্ধারণে টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বরাবরে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন। মেয়র স্মারকলিপি গ্রহণকালে টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির উদ্দেশ্যে বলেন, বৈশ্বিক করোনা মহামারীর দ্রুত সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকার কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করা জঘন্য অপরাধ। তবে সরকার পরিস্থিতি বিবেচনায় যে সিদ্ধান্ত নেবে তা মানতে হবে। কারণ আগে জীবন রক্ষা করাটাই প্রথম ও প্রধান এবং এর কোন বিকল্প নেই। স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আমিনুল হক, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবদুল মান্নান ও সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব বেলায়েত হোসেন।

চসিকের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে আজ বুধবার নগরীর সিআরবি, লালখান বাজার, কাজির দেউরী ও স্টেডিয়াম এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। আদালত পরিচালনাকালে করোনা ভাইরাসজনিত রোগের বিস্তার রোধে জনসাধারণকে মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য পথচারীদের সচেতন করা হয়। সে সময় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাস্ক না পরে ঘরের বাইরে বের হওয়ায় আটজন পথচারীকে এক হাজার পাঁচশত টাকা জরিমানা করা হয় এবং অভিযানে মাস্ক বিহীন জনসাধারণকে মাস্ক প্রদান করা হয়। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী ও স্পেশাল ম্যাজিষ্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ) জাহানারা ফেরদৌসের নেতৃত্বে এই মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। অভিযানকালে সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেটকে সহায়তা প্রদান করে।