মহামারি করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে মুসল্লিদের নামাজ আদায়ে  দেখা গেছে উদাসীনতা। নামাজ আদায়ে মসজিদে মাস্ক পরে আসা ও দূরত্ব মেনে কাতারে দাঁড়াতে আগ্রহ নেই তাদের। সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে, বেশিরভাগ মসজিদ কমিটি, ইমাম, মুয়াজ্জিনদেরও কোনও তৎপরতা দেখা যায়নি। বিভিন্ন এলাকার বিভিন্ন মসজিদ ঘুরে এবং খবরাখবর নিয়ে এ চিত্র দেখা গেছে

গেল সোমবার (৫ এপ্রিল) ধর্ম মন্ত্রণালয় করোনা সংক্রমণরোধে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের নির্দেশনা জারি করেছিলো।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিভিন্ন মসজিদে  মাস্ক পরা মুসল্লি অনেকেই আসলেও মাস্কবিহীন মুসল্লির সংখ্যাই বেশি। নামাজের কাতারে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে মসজিদ কমিটির কোনও উদ্যোগ নেই। মুসল্লিদের স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে ইমাম, মুয়াজ্জিনদেরও কোনও পদক্ষেপ নেই।

নামাজ আদায়কারী কয়েকজন মুসল্লি বলছেন, আমরা মাস্ক পরলেই তো হচ্ছে না, অন্যদের পরতে হবে। যারা মাস্ক পরছে না, তাদের জন্য বাকি সবাই ঝুঁকিতে পড়ছে। মাস্কবিহীন মুসল্লির সংখ্যা গ্রামাঞ্চলে সবচেয়ে বেশি। মসজিদ কমিটির উচিত, মাস্ক পরাছাড়া কাউকে মসজিদে প্রবেশ করতে না দেয়া। কিন্তু তারাও উদাসীন।কোনো মসজিদ কমিটি স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে  তদারকির কোনো ব্যবস্থা নেই।

সংক্রমণরোধে মসজিদের ওযুখানায় সাবান-হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে নির্দেশনাও দিয়েছে সরকার। তবে অনেক মসজিদ ঘুরে এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন হয়নি বলে দেখা গেছে।

প্রজ্ঞাপনে, মসজিদের খতিব, ইমাম এবং মসজিদ পরিচালনা কমিটি সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নেবেন বলে বলা হয়। আরও বলা হয়, নির্দেশনা লংঘিত হলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণকারী বাহিনী সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও গ্রহণ করবেন। তবে এখন পর্যন্ত দেখা যায়নি কোনও মসজিদ কমিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ।