চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী জব্বারের বলী খেলা এবারও স্থগিত করা হয়েছে করোনা ভাইরাসের কারণে। শত বছরের ইতিহাসে গত বছরের পর এবারও দ্বিতীয়বারের মতো এ কুস্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। একইসঙ্গে স্থগিত হলো এবারের বৈশাখী মেলাও।

আজ বুধবার (১০ মার্চ) সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান আবদুল জব্বার বলী খেলা ও মেলা আয়োজক কমিটির সভাপতি ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী।

সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‌‘১৯০৯ সাল থেকে প্রতি বছর ১২ বৈশাখ দেশের ঐহিহ্যবাহী জব্বারের বলী খেলা ও মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এটা চট্টগ্রামের মানুষের প্রাণের অনুষ্ঠান। করোনা পরিস্থিতি এখানে উন্নতি না হওয়ায় এবং জনসমাগম ঝুঁকিপূর্ণ থাকায় আগামী ১৪২৮ বাংলা ১২ বৈশাখ মেলা ও বলী খেলা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।’

এর আগে করোনা মহামারির প্রভাবে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা নিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়লে গত বছরও এই মেলা ও খেলা স্থগিত করে মেলা কমিটি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মেলা কমিটির সহ-সভাপতি চৌধুরী ফরিদ, সাধারণ সম্পাদক শওকত আনোয়ার বাদল, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ জামাল হোসেন, বলী খেলা ও মেলা কমিটির সহ-সভাপতি যথাক্রমে সাবেক কাউন্সিলর এম এ মালেক, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, সাবেক কাউন্সিলর এস এম জাফর, সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ তৈয়ব প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে দেশের যুব সমাজকে সংগঠিত করতে ১১০ বছর আগে স্থানীয় আব্দুল জব্বার সওদাগর নগরীর লালদীঘি মাঠে কুস্তি প্রতিযোগিতা আয়োজন করেন। পরে যা আব্দুল জব্বারের বলী খেলা নামে পরিচিত হয়। বাংলা পঞ্জিকা অনুসারে ১২ বৈশাখ জব্বারের বলী খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ১২ বৈশাখের দুই-তিন দিন আগে থেকে লালদীঘির মাঠ ও আশপাশের এলাকা নানা পণ্যে ভরে ওঠে। তিন দিনের মেলা হলেও সপ্তাহব্যাপী নানা পণ্যের পসরা সাজিয়ে জমজমাট বিকিকিনি চলে ।