চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী সামনের মাসের মধ্যে (এপ্রিল) পোর্ট পোর্টকানেক্টিং রোডের কাজ শেষ করতে চান। চট্টগ্রামের লাইফ লাইন খ্যাত জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটির কাজ দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করতে তিনি ঠিকাদারদের সময় বেধে ও কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগকে তাগিদ দিতে বলেছেন। মেয়র কার্যাদেশ প্রাপ্ত ঠিকাদারদের হুশিয়ার করে বলেন, অতীতে কি করেছেন তা ভুলে যান। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ শেষ না করার ফলে জনভোগান্তি হলে আমি কাউকে ছাড় দেবনা। তিনি আজ সোমবার বিকেলে পোর্টকানেক্টিং কলকা সিএনজি থেকে নয়াবাজার পর্যন্ত অংশের পিচ ঢালাইয়ের কাজ সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে একথা বলেন।

এসময় স্থানীয় কাউন্সিলর অধ্যাপক মো. ইসমাইল কর্পোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজম্মেল হক, মেয়রের একান্ত সচিব মো. আবুল হাশেম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু ছালেহ, সুদীপ বসাক, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাহাদাত মো. তৈয়ব, আশিকুল ইসলাম, স্থানীয় রাজনীতিক মো. হোসেন, গোলাম ফোরকান মেয়রের সাথে ছিলেন। মেয়র পিসি রোডের কলকা সিএনজি থেকে নয়াবাজার মোড় পর্যন্ত অংশের পশ্চিম পাশের বেশ কিছু অংশে হেটে পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি স্থানীয় অধিবাসীদের সাথে কথা বলেন।জানতে চান তাদের সমস্যার কথা। তখন স্থানীয় বাসিন্দারা জনবহুল এই পিসি রোডের কাজের ধীর গতির জন্য তাদের ভোগান্তির কথা মেয়রকে অবহিত করলে তিনি দ্রুত কাজ শেষ করে ভোগান্তি কমাতে তাঁর পক্ষ থেকে যথা সম্ভব চেষ্টা করবেন বলে তাদের আশ্বস্ত করেন। মেয়র বলেন, আমরা কাজ না করলে ঠিকাদারকে কালো তালিকা ভুক্ত করবো। আর যদি কেউ মৌখিকভাবে দোষ স্বীকার করে কাজ করবে কথা দেয় তাদের সে সুযোগও দেয়া হবে। সামনে বর্ষা, কাজেই নতুন কার্যাদেশ নিয়ে করতে গেলে সময়ক্ষেপণ হবে। তাই চেষ্টা করছি যারা কাজ পেয়েছে তাদের থেকে কাজ আদায় করতে। না করলে তখন আইনি ব্যবস্থা নিব অবশ্যই।

উল্লেখ্য এই পিসি রোডে ৪ গ্রুপে কাজ চলছে। এখানে কাজ করছে তাহের ব্রাদার্স. ম্যাক কর্পোরেশন ও রানা বিল্ডার্স। তাহের ব্রাদার্সের কাজ প্রায় শেষ। বাকী রয়ে গেছে রানা বিল্ডার্স ও ম্যাক এর। বর্ষার আগে জনবহুল এই পিসি রোডের পূর্ব পাশের ১ হাজার মিটার সড়কের পিচ ঢালাই সম্পন্ন হলেও জনভোগান্তি অনেকাংশে কমে আসবে । এই অংশে এখন পিচ ঢালাইয়ের কাজ চলমান আছে।

আর পড়ুন:   ডেঙ্গু মোকা‌বিলায় জনগণকেও এ‌গিয়ে আসতে হবে : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী 
সোনার বাংলা’ স্পেশাল বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী

পরিবহন খাতের শঙ্খলায় মালিক নেতাদের ভূমিকাই মুখ্য :

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন,পরিবহন খাতের শৃঙ্খলা ফিরাতে মুখ্য ভূমিকা রাখতে পারে একমাত্র এই খাতে যারা জড়িত তারাই। পরিবহন মালিক-শ্রমিক নেতাদের সহায়তা আন্তরিকতা ছাড়া পরিবহন খাতকে সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা করা সম্ভবপর নয়। জনমানুষের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডের সাথে পরিবহন ব্যবস্থা জড়িয়ে আছে। যারা পরিবহন ব্যবসা পরিচালনা করেন, অবহেলার কারণে তাদের নিজেদের স্বজনরাও অনেক সময় দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। কাজেই পরিবহন খাতকে সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা করতে পারলে নগরের যানজট কমার পাশাপাশি মানুষের কর্মঘণ্টার সাশ্রয় হবে। দুর্ঘটনা থেকেও রক্ষা পাবে মানুষের জানমাল। তিনি আজ সোমবার সকালে নগরীর শাহ আমানত সেতু সংলগ্ন এলাকায় ‘সোনার বাংলা’ স্পেশাল বাস সার্ভিস এর উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বেলালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিআরটিএ’ এর উপ-পরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ মুসা, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অলি আহম্মদ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আরো বলেন, এই নগর শুধু মেয়রের একার নয়। এই শহর সবার। তাই নগরীকে পরিচ্ছন্ন বাসযোগ্য করতে সবার পরামর্শ ও সহযোগিতা লাগবে। পরিবহন খাতের শৃঙ্খলা ফেরাতে আমি পরিবহন মালিক ও নেতাদের সাথে বসবো। সবার সমন্বয়ে আমি নগরীকে নান্দনিকভাবে সাজাতে চাই। আশা করি সবার সহযোগিতা আমি পাব। পরে মেয়র ‘সোনার বাংলা’ স্পেশাল বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন। উল্লেখ্য এই বাস সার্ভিস চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপ চালু করেছে।

ভাসানচরের রোহিঙ্গারা ভালো আছেন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের নৌ বাহিনীর এরিয়া কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল এম মোজাম্মেল হক।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীর সাথে আজ সোমবার দুপুরে তাঁর টাইগারপাসস্থ দপ্তরে সৌজন্য সাক্ষাত করেছেন চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের নৌ বাহিনীর এরিয়া কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল এম মোজাম্মেল হক। এরিয়া কমান্ডার চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে এসে পৌঁছালে মেয়র তাঁকে উষ্ণ অভ্যত্থনা জানান ও ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এসময় পারস্পারিক কুশল বিনিময়ের পর নৌ এরিয়া কমান্ডার চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ন ও সেবামূলক কাজে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে তাদের কোনো সহায়তার প্রয়োজন হলে তা করার ইচ্ছা পোষণ করলে মেয়র এতে সম্মতি প্রকাশ করেন।

আর পড়ুন:   মোদি আসছেন ঢাকা, শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক ২৭মার্চ

রিয়ার এডমিরাল এম মোজাম্মেল হক নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি খাল-নালাগুলো পরিস্কারে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হবে কিনা তা জানার আগ্রহ প্রকাশ করলে মেয়র শিঘ্রই ময়লা আবর্জনা ভরে যাওয়া খাল পরিস্কারের কাজ শুরু করা হবে বলে জানান। আলাপকালে এরিয়া কমান্ডার মেয়রের সাথে কক্সবাজার থেকে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তরে তাদের সম্পৃক্ততা ও কর্মকাণ্ডের অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। তখন মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বর্তমানে ভাসানচরে স্থানান্তর হওয়া রোহিঙ্গাদের কি অবস্থায় আছে তা এরিয়া কমান্ডারের কাছে জনাতে চান। এরিয়া কমান্ডার ভাসানচরে রোহিঙ্গারা বেশ ভাল পরিবেশে স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশে বসবাস করছেন বলে মেয়রকে অবহিত করেন। সে সময় নৌ এরিয়া কমান্ডার নব নির্বাচিত মেয়রকে নৌ ভ্রমণের আমন্ত্রণও জানান। বৈঠককালে কাউন্সিলর ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, মেয়রের একান্ত সচিব মো. আবুল হাশেম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক উপস্থিত ছিলেন।

বই মেলা উপলক্ষে মতবিনিময় সভা

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে আয়োজিত বই মেলার আয়োজন উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভা আগামীকাল ২ মার্চ মঙ্গলবার বেলা ৩টায় আন্দরকিল্লা পুরাতন নগর ভবনের কে.বি আবদুস সাত্তার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।