মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে কক্সাবাজারে আশ্রয় নেয়া আরও ১ হাজার ১১ রোহিঙ্গা নোয়াখালীর ভাসানচরে গেছেন। এ পর্যন্ত সাড়ে ৯ হাজার রোহিঙ্গা ভাসানচরে গেছেন।

আজ মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় নগরের পতেঙ্গা বোট ক্লাব সংলগ্ন জেটি থেকে নানা বয়সী ১ হাজার ১১ রোহিঙ্গা বাংলাদেশ নৌবাহিনীর তিনটি জাহাজে রওনা দেন।

তাদের সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে কক্সবাজারের উখিয়া ক্যাম্প থেকে চট্টগ্রাম আনা হয়। নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বিএএফ শাহীন কলেজ মাঠের অস্থায়ী ক্যাম্পে রাতযাপনের পর তাদের জাহাজে তোলা হয়।

নৌবাহিনীর চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, পর্যায়ক্রমে আরও ৯০ হাজার রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেয়া হবে। ১৩ হাজার একর আয়তনের ভাসানচরে ১২০টি অত্যাধুনিক পরিবেশবান্ধব গুচ্ছগ্রামের অবকাঠামো তৈরি করেছে নৌবাহিনী। রোহিঙ্গাদের জন্য বাসস্থান ছাড়াও বেসামরিক প্রশাসনের প্রশাসনিক ও আবাসিক ভবন, আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার ভবন, ধর্মীয় উপাসনালয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, চিকিৎসালয়, শিশুদের খেলার মাঠ ও বিনোদন স্পট গড়ে তোলা হয়েছে ভাসানচরে।