৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ। চলছে গণনা। এখন অপেক্ষা শুধু ফলাফল ঘোষণার। ইতোমধ্যে বেশিরভাগ অঙ্গরাজ্যে সম্ভাব্য বিজয়ী কে হচ্ছেন সে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে। ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন এ পর্যন্ত ২৩৮টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট জিতে এগিয়ে রয়েছেন।

শুরুর দিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে বেশ বড় ব্যবধানেই এগিয়ে ছিলেন বাইডেন। তবে সময়ের সঙ্গে সেই দূরত্ব কমিয়ে এনেছেন রিপাবলিকান প্রার্থী। বর্তমানে তার ঝুড়িতে রয়েছে ২১৩টি ইলেকটোরাল ভোট।

প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের তথ্যমতে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের অন্যতম ব্যাটলগ্রাউন্ড পেনসিলভানিয়াসহ এখনও অন্তত সাতটি অঙ্গরাজ্যের ফলাফল আসতে বাকি। সেগুলোর মধ্যে অন্তত পাঁচটিতেই এগিয়ে ট্রাম্প।

জো বাইডেন এগিয়ে নেভাদা ও উইসকনসিনে। এ দু’টি অঙ্গরাজ্যে ইলেকটোরাল ভোট রয়েছে যথাক্রমে ছয় ও ১০টি। ফলে এসব জায়গায় জয় পেলে ডেমোক্র্যাট প্রার্থীর ঝুড়িতে জমা হবে মোট ২৫৪টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট।

বিপরীতে ডোনাল্ড ট্রাম্প এগিয়ে রয়েছেন পেনসিলভানিয়া, মিশিগান, নর্থ ক্যারোলিনা, জর্জিয়া ও আলাস্কায়। এগুলোর মধ্যে পেনসিলভানিয়ায় ইলেকটোরাল ভোট রয়েছে ২০টি, মিশিগানে ১৬, নর্থ ক্যারোলিনায় ১৫, জর্জিয়ায় ১৬ ও আলাস্কায় তিনটি।

ফলে এ পাঁচটি অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প জিতলে তার ইলেকটোরাল ভোট হবে মোট ২৮৩টি। অর্থাৎ নির্বাচনে জিততে প্রয়োজনীয় ২৭০টি ইলেকটোরাল ভোট সহজেই ছাড়িয়ে যাওয়ার পথে তিনি।

ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে উইসকনসিনেও। বাংলাদেশ সময় বুধবার দুপুরেও এ অঙ্গরাজ্যে রিপাবলিকানদের এগিয়ে থাকতে দেখা গেছে। বিকেলের দিকে সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে যায় ডেমোক্র্যাটরা।

গার্ডিয়ানের সবশেষ তথ্যে দেখা যায়, ১০টি ইলেকটোরাল ভোট থাকা উইসকনসিনে ৪৯ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন। ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৯ দশমিক ১ শতাংশ।

অবশ্য এবারের নির্বাচনে শুধু প্রত্যক্ষ ভোটেই বিজয়ী নির্ধারণ হচ্ছে না। যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট কে হবেন তা নির্ধারণে এ বছর ১০ কোটির বেশি মানুষ আগাম ভোট দিয়েছেন। এসব ভোট গণনা হতে সময় লাগবে আরও কয়েক দিন। ফলে ট্রাম্প না বাইডেন- হোয়াইট হাউসের দখল কার হাতে যাচ্ছে তা জানতে অপেক্ষা করতেই হচ্ছে।