৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ, বিদ্যালয় হতে ঝরে পড়া রোধেকল্পে অভিভাক সমাবেশ ও শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তি প্রদান ও শিক্ষা উপকরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার (১৪সেপ্টেম্বর) আয়োজিত বাঁশখালী সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে  বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন বলেছেন, প্রাথমিক শিক্ষা যদি নিশ্চিত করতে পারি সন্তানদের বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ার যে স্বপ্ন ছিল তা বাস্তবায়ন হবে। আপনার ছেলে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ গঠনে ভূমিকা রাখতে পারে সেই দিকে নজর রাখতে হবে। শিক্ষার্থীদের নৈতিকতা শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে, উপর্যুক্ত শিক্ষা নিয়ে শিক্ষিত হলেই উন্নত জাতি হিসেবে পরিচিত লাভ করবে। আপনার সন্তানদের পুষ্টিসম্মত খাবার খাওয়াবেন। তাতে সস্তানদের মেধার বিকাশ ঘটবে। সরকারি উদ্যোগে ‘মিট দ্যা মিল’ ব্যবস্থা চালু করেছে। সেই নিয়ম মেনে চলবেন। প্রতিদিন দুপুরে যাতে অভুক্ত না থাকে সন্তানেরা সেইদিকে নজর দিতে হবে। আপনাদের সন্তান সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে মানুষ হোক সেটাই আমরা চাই। বাচ্চাদের দেখাশুনা করবেন আপনারা। আপনার সন্তান যাতে খারাপ ছেলে মেয়েদের সাথে না মিশে সেই দিকে নজর দিবেন। মায়েরা ছেলেদের যত্ন নেয় বেশি। মানুষের মত মানুষ হোক, সুশিক্ষায় শিক্ষিত হোক আপনার সন্তান। যাদের প্রতিভা রয়েছে তা বিকশিত হবেই। আপনাদের যে কোনো সমস্যা সমাধানে ইউএনও খেয়াল রাখবেন। বাঁশখালীর শিক্ষার উন্নয়নের ক্ষেত্রে কাজ করে যাচ্ছে সরকার।

বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বাঁশখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ, বিদ্যালয় হতে ঝরেপড়া রোধকল্পে অভিভাবক সমাবেশ, জেলা প্রশাসক বৃত্তি প্রদান ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোমেনা আক্তার। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাঁশখালী উপজেলা চেয়ারম্যান  চৌধুরী মুহাম্মদ গালীব সাদলী, বাঁশখালীর পৌরসভার মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রেহেনা আক্তার কাজেমী, মহিলা কাউন্সিলর রোজিনা আক্তার রোজি, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম, প্রধানশিক্ষক মো. শহিদুল্লাহ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন শিক্ষিকা বাবলী দাশ।

আর পড়ুন:   পরিবেশ অধিদফতরের অভিযানে জব্দ ২টন পলিথিন

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সামনে প্রশ্নোত্তর পর্বে দৈনন্দিন লেখাপড়ার মান নিয়ে ৪ জন শিক্ষার্থীর মা তাদের ছেলে মেয়েদের মানুষ গড়ার অনুভূতি তুলে ধরেন। জেলাপ্রশাসক পরে পূর্ব জলদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটাল ক্লাসের উদ্বোধন করেন।