৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

৫৭ বছর ধরে নিঃসন্তান থাকার পর অবশেষে সন্তানের মুখ দেখলেন ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা মাঙ্গায়াম্মা ও রাজা রাও দম্পতি। তাও আবার যমজ সন্তান। আাজ বৃহস্পতিবার(০৫সেপ্টেম্বর) স্থানীয় অহল্যা নার্সিং হোমে যমজ সন্তান প্রসব করেন ওই বৃদ্ধা।

১৯৬২ সালে বিয়ে করেছিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের বাসিন্দা ইরামাট্টি মাঙ্গায়াম্মা ও রাজা রাও। এরপর অর্ধ শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে তারা নিঃসন্তান ছিলেন। অবশেষে আইভিএফ পদ্ধতির মাধ্যমে সন্তানের বাবা-মা হলেন এই দম্পতি।

অহল্যা নার্সিং হোমের চার চিকিৎসকের একটি দল মাঙ্গায়াম্মার সিজারিয়ান অপারেশন করেন। এ চিকিৎসক দলের নেতা এস উমাশঙ্করের দাবি, মাঙ্গায়াম্মাই সবচেয়ে বেশি বয়সে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। এর আগে এই রেকর্ড ছিল হরিয়ানার দলজিন্দর কউরের। ৭০ বছর বয়সে তিনি সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন ২০১৬ সালে।

চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ভালোভাবেই সিজার অপারেশন শেষ হয়েছিল। কিন্তু পরে মা ও শিশুদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাদের কয়েক ঘণ্টার জন্য আইসিইউতে রাখা হয়। তবে বর্তমানে মা ও নবজাতক দুই শিশুই সুস্থ আছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

চিকিৎসকেরা জানান, বয়স বেশি হলেও মা না হওয়ার কোনো কারণ ছিল না মাঙ্গায়াম্মার। তার শরীরে ডায়াবেটিস বা উচ্চ রক্তচাপজনিত কোনো রোগও ছিল না। তবে পোস্ট ডেলিভারির পর কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে তার শরীরে। যেমন, তিনি সন্তানদের মাতৃদুগ্ধ পান করাতে পারবেন না।

আইভিএফের সাহায্যে প্রতিবেশী এক নারীকে ৫৫ বছর বয়সে মা হতে দেখে নিজেরও মা হওয়ার ইচ্ছা জোরালো হয়ে ওঠে মাঙ্গায়াম্মার।

ডা. উমাশঙ্কর জানান, সন্তান ধারণের জন্য শারীরিকভাবে ফিট ছিলেন এই কৃষক নারী। প্রথম সাইকেলেই তিনি কনসিভ করেছেন। এ বছরের জানুয়ারিতে তিনি গর্ভবতী হন।