৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রামে তালা কেটে ও দোকানের শার্টার কৌশলে ফাঁকা করে চুরি করা চক্রের মূল হোতা হানিফসহ ১১ সদস্যকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। তাদের কাছ থেকে দুটি এলজি, চারটি কার্তুজ, একটি লোহা কাটার ও চুরি করার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

রবিবার দুপুরে চট্টগ্রামের চেরাগী পাহাড় এলাকায় চট্টগ্রাম মহানগর উপপুলিশ কমিশনার দক্ষিণ এর কার্যালয়ে উপপুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, এই গ্রুপের প্রায় ৫০ জন সদস্য আছে।

কোতোয়ালি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান  বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, সিলেটসহ বিভিন্ন শহরে অভিনব উপায়ে শার্টার কেটে বা কৌশলে প্রবেশ করে চুরি করে।

কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন বলেন, এ চক্রটি রাতে বা দিনে দোকান যে সময় বন্ধ থাকে সেই সময়ে শার্টারের প্রস্থ ছোট হলে তালা কেটে বা শার্টারের প্রস্থ বড় হলে শার্টার টেনে ফাঁক করে একজন বা দুইজন দোকানে প্রবেশ করে। মার্কেটে দারোয়ান বা লোকজন থাকলে তাদের দৃষ্টি আড়াল করার জন্য পর্দা, লুঙ্গি, বিছানার চাদর, ছাতা ব্যবহার করে কৌশলে অঙ্গভঙ্গি প্রকাশ করে দোকান থেকে সবকিছু চুরি করে।

আর এ কাজ করতে সময় নেয় মাত্র দুই থেকে তিন মিনিট। গ্রেপ্তারকৃতরা প্রায় আট–দশবছর ধরে এ কাজ করে আসছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার মো. শাহ আবদুর রউফ আরো বলেন, চোরেরা নিজেদের ভেতর কথা বলার সময় বিশেষ সাংকেতিক শব্দ ব্যবহার করে। দোকানকে তারা বলে অফিস, তালাকে বলে আম আর কার্টারকে বলে গাড়ি, চাদরকে বলে ঠোঙ্গা। চুরি করা টাকা ভাগ ভাটোয়ারা সময় এক লাখ টাকাকে বলে এক টাকা।

তিনি আরো বলেন, আসামিরা হেফাজতে অস্ত্র রাখে যদি কোন বাধার সম্মুখীন হয় তাহলে সেগুলো ব্যবহার করে। এ চক্রটি গত কয়েকদিনে চট্টগ্রামের দুটি স্থানে শার্টার কেটে চুরি করেছে।ডিসি নিয়োগ করেছে সরকার।