৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার মধ্যরাতে কলকাতার শেক্সপীয়র সরণি এবং লাউডন স্ট্রিটের সংযোগস্থলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

শেক্সপিয়ার থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কাজী মোহাম্মদ মঈনুল আলমের (৩৬) বাবার নাম কাজী মো. খলিলুর রহমান। তার বাড়ি ঝিনাইদহের ভুটিয়ার ঘাঁটি পোস্ট অফিস এলাকায়।ফারহানা ইসলাম তানিয়ার (৩০) বাবার নাম মোহাম্মদ আমিরুল ইসলাম। তার বাড়ির ঠিকানা ১৫-বি লালমাটিয়া, জাকির হোসেন রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ২টার দিকে প্রচণ্ড গতিতে ছুটে যাওয়া একটি জাগুয়ার গাড়ি একটি মার্সিডিজকে ধাক্কা দিলে জাগুয়ারটি রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা দুই পথচারীকে চাপা দেয়।

গুরুতর আহত ওই দুইজনকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। ওই ঘটনায় আহত হয়েছেন মার্সিডিজের চালক ও আরোহী। ঘটনার পরই গাড়ি ফেলে পালিয়ে যায় জাগুয়ারের চালক।

একটি সূত্র জানিয়েছে, নিহত ওই দুই বাংলাদেশি চিকিৎসা করাতে ১৫ দিন আগে কলকাতায় যান। জাগুয়ারটিকে আটক করেছে পুলিশ। সিসিটিভির ফুটেজ খতিয়ে দেখে জাগুয়ারের চালককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, মইনুল চাকরি করতেন গ্রামীণ ফোনে। তানিয়া ছিলেন বাংলাদেশে সিটি ব্যাংকের অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে। ময়নাতদন্তের পর বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে পেট্রাপোল ও বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে তাদের মরদেহ পাঠানো হবে।

দুর্ঘটনা সম্পর্কে বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার মুহম্মদ বসিরউদ্দিন বলেন, নিহত দুইজনে ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়েছিলেন বা ফুটপাত ধরে যাচ্ছিলেন। এইসময় একটি গাড়ি অন্য একটি গাড়িকে ধাক্কা দেয়। সেই গাড়িটিই ওদের ওপরে এসে পড়ে।