৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

“অপরিসীম ত্যাগ-তিতিক্ষা ও সাধনার মাধ্যমে অনেক আন্দোলন-সংগ্রামের রক্তাক্ত সিড়ি বেয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে নিজের জায়গা করে নিয়েছিলেন।বিশ্বের প্রতিটি দেশের মানুষ তাদের জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা ও সম্মান করেন।কিন্তু বাঙালি এমনই এক অকৃতজ্ঞ জাতি, জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা-সম্মান তো দূরের কথা তাঁকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে হত্যা করে।” গত ৩ আগস্ট রোটারি ক্লাব অব চিটাগাং হিলটাউনের নিয়মিত সভা ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধানবক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে রোটারিয়ান খনরঞ্জন রায় এ কথা বলেন। ক্লাবের সভাপতি রোটারিয়ান দেবদুলাল ভৌমিকের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ সভায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখা ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার ওপর গুরুত্বারোপ করে খনরঞ্জন আরও বলেন, “ স্বাধীনতার চারদশক পরও স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি নানান ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ১৫ আগস্টের এর কুশিলবদের সাথে যোগসাজশ করে অশুভ এ চক্র আরেকটি ১৫আগস্ট ঘটানোর অপচেষ্টায় লিপ্ত আছে।” অনুষ্ঠানে অন্যদের বক্তব্য রাখেন রোটারিয়ান নোটনপ্রসাদ ঘোষ, রোটারিয়ান মোহাম্মদ দিদারুল ইসলাম, রোটারিয়ান গোলাম মওলা মামুন,  সেক্রেটারি রোটারিয়ান মোহাম্মদ ইউসুফ, রোটারিয়ান মো. রেজাউল করিম, রোটারিয়ান অধ্যাপক প্রদীপ কুমার দাশ, রোটারিয়ান অধ্যাপক জনার্দন কুমার বণিক ও রোটারিয়ান সন্তোষ কুমার ভৌমিক। বক্তারা ১৫ আগস্ট নিহত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের সকল সদস্যের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, “ শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। তবে অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি মানবিক উন্নয়নকে প্রাধান্য দিতে হবে। ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য কমিয়ে আনতে হবে, নিশ্চিত করতে হবে সুশাসন।