৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সাবেক রাষ্ট্রপতি, সেনাশাসক এরশাদের মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতে তার ছেলে এরিক এরশাদকে নিয়ে শুরু হয়েছে টানা হ্যাচড়া। এরিকের ভোগদখলে থাকা অর্ধশত কোটি টাকা সম্পত্তির কারণেই এ টানা-হ্যাচড়া, বলছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ও সাবেক স্ত্রী বিদিশা সিদ্দিকের সংসারে একমাত্র সন্তান এরিক এরশাদ। এরিক একজন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ছেলে। এই দম্পতির বিয়ে বিচ্ছেদের পর ২০১১ সালে আদালতের আদেশে এরিকের দেখভালের দায়িত্ব পান এরশাদ।

মৃত্যুর আগে এরশাদ প্রায় ৫০ কোটি টাকার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির যে ট্রাস্ট করে গেছেন তার পুরোটার ভোগদখলকারী নিয়োগ করেন এরিক এরশাদকে। এরশাদের মৃত্যুর পরদিন নিজ সন্তান এরিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে বারিধারায় সাবেক স্বামীর বাড়িতে ঢুকতে না দেয়ার অভিযোগ বিদিশার। এ নিয়ে গণমাধ্যমে ক্ষোভও জানান তিনি। অভিযোগ করেন ট্রাস্টের সম্পত্তির লোভেই তার সঙ্গে এরিককে দেখা করতে দেয়া হচ্ছে না।

সন্তানের অধিকার নিয়ে করা বিদিশার মামলার সেই সময়ের আইনজীবী ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ জানান, কোনো আইনেই এরিককে তার মার সঙ্গে দেখা করতে বাধা দিতে পারে না।

বারিধারায় প্রেসিডেন্ট পার্কে বিদিশাকে প্রবেশ করতে না দেয়ার বিষয়ে এরশাদের সম্পত্তির ট্রাস্টের দেখভালকারী মেজর খালেদ জানান, বিদিশার বিষয়ে প্রয়াত এরশাদের কিছু বাধা নিষেধ ছিল ।

তিনি বলেন, এরশাদের সাবেক স্ত্রী হিসেবে সন্তান এরিকের দায়িত্ব নিতে আবারও আইনের আশ্রয় নেয়ার সুযোগ রয়েছে মা বিদিশার। তবে এ নিয়ে কোনো রাজনীতি বা ষড়যন্ত্রের অভিযোগ নাকচ করেন মেজর খালেদ।