৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভারত এবারই সবচেয়ে ফেভারিট দল হিসেবে এসেছিলো  ক্রিকেট বিশ্বকাপের ইতিহাসে । তাদের সামর্থ্য সম্পর্কে ক্রিকেট ভক্তদের ধারণা এমন ছিলো যে, এ আসরের অন্যতম শক্তিশালী দল ইংল্যান্ডের দেয়া ৩৩৮ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে ব্যর্থ হওয়ার পর ম্যাচ পাতানোর সন্দেহ জাগে দলটির বিরুদ্ধে! ভাবখানা এমন, এই রান তাড়া করা কোনো ঘটনাই না কোহলি-রোহিতদের জন্য। অথচ বুধবার (১০জুলাই)  নিউজিল্যান্ডের দেয়া ২৪০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে তারা হারলো ১৮ রানে।

এরমধ্য দিয়ে শেষ হয়ে গেল ভারতের বিশ্বকাপ যাত্রা। দাপুটে দলটিকে ফিরতে হচ্ছে শূন্য হাতেই। ফাইনাল না খেলেই! অন্যদিকে লিগপর্বের শুরুতে ভালো করলেও শেষ দিকের ব্যর্থতায় রান রেটের ব্যবধানে সেমিফাইনালে ওঠা নিউজিল্যান্ড চলে গেল ফাইনালে। ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে জয়ী দলটির মুখোমুখি হবে কেন উইলিয়ামসনের দল।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে কিউইরা ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেটে ২১১ রান তোলার পর নামে বৃষ্টি। এরপর গতকাল আর কোনো বল মাঠে গড়ায়নি। রিজার্ভ ডেতে আজ বুধবার আবারো ব্যাটে নামে নিউজিল্যান্ড। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৩৯ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় দলটি। জবাবে খেলতে নেমে ২৪ রানেই চার উইকেট হারায় ভারত। পরে জাদেজা ও ধোনীর ব্যাটে প্রতিরোধ গড়লেও শেষ রক্ষা হয়নি। ৩ বল বাকি থাকতেই ২২১ রানে থামে কোহলিদের ইনিংস। ১৮ রানের এক অবিস্মরণীয় জয় পায় গতবারের রানারআপ নিউজিল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড: ৫০ ওভারে ২৩৯/৮ (টেইলর ৭৪, উইলিয়ামসন ৬৭, নিকোলাস ২৮, গ্রান্ডহোম ১৬, নিশাম ১২; ভুবনেশ্বর ৩/৪৩)।

ভারত: ৪৯.৩ ওভারে ২২১/১০ (জাদেজা ৭৭, ধোনি ৫০, পান্ডিয়া ৩২, রিশব ৩২, কার্তিক ৬; হেনরি ৩/৩৭, স্যান্টনার ২/৩৪, বোল্ট ২/৪২)।

ফল: নিউজিল্যান্ড ১৮ রানে জয়ী।

আর পড়ুন:   সর্বাধুনিক প্রোটন থেরাপির ক্যান্সার হাসপাতাল হবে ঢাকায়

ম্যাচসেরা: ম্যাট হেনরি (নিউজিল্যান্ড)।