৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন যুবক নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি নিহতরা মানবপাচার মামলার পলাতক আসামি। মঙ্গলবার(২৫জুন) ভোরে উপজেলার মহেষখালিয়াপাড়া নৌকাঘাটে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের নয়াপাড়ার বাসিন্দা আব্দুর শুক্কুরের ছেলে কোরবান আলী (৩০), পৌরসভার কে কে পাড়ার আলী হোসেনের ছেলে আব্দুল কাদের (২৫) ও একই এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে আব্দুর রহমান (৩০)।

এ ঘটনায় পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সায়েফ, কনস্টেবল মোহাম্মদ শুক্কুর আহত হয়েছেন। তাদের টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে তিনটি এলজি, শর্টগানের ১৫টি তাজা গুলি ও ২০টি খালি খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ভোর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মানবপাচার মামলার আসামিদের ধরতে মহেষখালিয়াপাড়া নৌকাঘাটে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি চালায় মানবপাচারকারী দলের সদস্যরা। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে মানবপাচারকারী দলের সদস্যরা পালিয়ে যান। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ তিন যুবককে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। সেখান থেকে তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

ওসি আরও জানান, নিহত তিনজনের বিরুদ্ধে ১৫ জন রোহিঙ্গাকে পাচারের অভিযোগে মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।