১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বিশ্বকাপের ১২তম ম্যাচে টাইগারদের মিশন এবার শিরোপা প্রত্যাশী হোস্ট ইংল্যান্ডকে হারানো। এ লক্ষ্যে শনিবার (০৮জুন) বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায় মাঠে নামছে মাশরাফি বাহিনী । আগের দু’বিশ্বকাপে ওদের বিপক্ষে ব্যাক টু ব্যাক জয় দিচ্ছে বড় অনুপ্রেরণা। লাকি ভেন্যু কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে লড়াইটা বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে দুই দলের অধিনায়কের কাছেও।

ওভালে শেষ ম্যাচের আগে বৃষ্টিতে পন্ড হয়েছিল টাইগারদের অনুশীলন। কার্ডিফেও পিছু ছাড়েনি বৃষ্টি। পন্ড মাশরাফিদের মাঠের প্র্যাকটিস। ঠিকঠাক অনুশীলন করতে না পারার আক্ষেপ ক্যাপ্টেন মাশরাফিরও। ইনডোরের নেটেই মুশফিক, মিথুনরা গা গরম করেছেন।

এবারের আসরের হট ফেবারিট ইংল্যাণ্ড। ভালো করেই ওদের শক্তি জানা আছে বাংলাদেশের। তবে ছাড় দেবে না বলে রেখেছেন টাইগার অধিনায়ক। ওয়েলসের উইকেটে বাড়তি সুবিধে পেতে পারেন পেইসাররা। সেক্ষেত্রে এ ম্যাচে খেলতে পারেন রুবেল।

২০১১ আর ১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হেরেছে ইংলিশরা। কিন্তু গেল বিশ্বকাপের পর থেকেইতো আমুল বদলেছে ওরা। এখন আর ব্যাকরণের ধার ধারে না। অ্যাটাকি ক্রিকেটে ঘায়েল করে প্রতিপক্ষকে। তবে প্রতীপক্ষ যখন বাংলাদেশ তখনই দারুণ সাবধানী হোস্টরা।

ইংল্যান্ড অধিনায়ক এউইন মরগান বলেন, ’বাংলাদেশের বিপক্ষে ডিফিকাল্ড ম্যাচ হবে। ওরা অনেক ভাল ক্রিকেট খেলে। আর ওদের সিনিয়ররা অনেক ম্যাচ খেলছে। দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে ভাল ম্যাচ খেলেছে। নিউজিল্যান্ডকেও অনেক চাপে রেখেছে। আমাদের জন্যও কিছুই সহজ হবে না।তাদের ব্যাটং সাইড অনেক ভাল। ভাল স্পিনার এবং পেইসারও আছে।’

ইংল্যান্ডকে তাদের মাটিতে বাংলাদেশ হারিয়েছে একবারই- ২০১০ সালের ন্যাটওয়েস্ট সিরিজে।