৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে একজন নারী সাংবাদিককে কুরুচিপূর্ণ ভাষায় আচরণ করে ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেন পুরো নারী সমাজকেই অবমাননা করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন।পাশাপাশি নারী সমাজের অবমাননাকারী ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনকে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনারও দাবি জানান তিনি।

সোমবার (২২ অক্টোবর) সকালে জামালখানে একটি বেসরকারি সংস্থার কার্যালয়ে ৩৭ ও ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

খোরশেদ আলম সুজন বলেন, ব্যারিস্টার মঈনুল ব্যারিস্টার উপাধি গায়ে দিয়ে জাতীয় ঐক্যের নামে দেশবাসীকে বিভ্রান্ত করছেন। কিন্তু এ রকম নোংরা মানসিকতার মানুষকে নিয়ে যারা রাজনীতি করেন তাদের কাছ থেকে দেশবাসী কি আশা করবে তা আজ ভেবে দেখার সময় এসেছে। তিনি পুরো নারী সমাজকে অবমাননা করেছেন। এ জন্য তাঁকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে।

বিএনপিকে একটি সন্ত্রাসী এবং লুটপাটের দল উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, এই দলের চেয়ারপারসন দুর্নীতির দায়ে বর্তমানে কারাগারে। আর এই দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন একুশে আগস্টের নির্মম নৃশংস হত্যাকাণ্ডের দায়ে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বর্তমানে বিদেশে পলাতক অবস্থায় আছে। এ রকম একটি সন্ত্রাসী দলের সাথে ঐক্য করে ড. কামাল হোসেনের ভদ্রতার মুখোশ জাতির সামনে উন্মোচিত হয়েছে।

সুজন আরও বলেন, জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী সমাজকে একটি উচ্চ মর্যাদার আসনে আসীন করেছেন। সংসদের স্পীকার, বিরোধীদলীয় নেত্রী এবং সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন উচ্চ পদে নারীদের অবস্থান দেশে-বিদেশে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। সন্তানের নামের সঙ্গে পিতার পাশাপাশি মায়ের নামও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দেশের রাজনীতি, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক জগতে নারীদের অংশগ্রহণ উল্লেখযোগ্যহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের প্রধানতম অর্থনীতির খাত পুরোটাই নারী সমাজের সাথে সম্পৃক্ত। নারীদের এই এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র একজন মহিয়সী নারী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনামূলক নেতৃত্বে। নারী সমাজের এই অগ্রযাত্রাকে আগামী দিনে আরো বেগবান করতে শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই।

আর পড়ুন:   হোটেল পেনিনসুলার বেইজমেন্টে আগুন

এখনই ঘরে ঘরে গিয়ে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনগণের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য নেতাদের আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৩৭ নম্বর ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পারভীন সুলতানা, সাধারণ সম্পাদক কানিজ ফাতেমা মিনি, সহ-সভাপতি মিনি দেব, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মুনিরা ইয়াসমিন, অশ্রু দে, আবিদা সুলতানা, হাসিনা আক্তার, বিউটি খানম, নাজমা বেগম, ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী বেবী দাশ, শুভ্রা চৌধুরী, পূজা মজুমদার, বেবী দাশ, সুমী দে, অপর্না দে প্রমুখ।