৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ || ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আগামী নির্বাচনেও বরাবরের মতো  আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে কেউ তাদের হারাতে পারবে না বলে মনে করেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ একটি জনপ্রিয় দল, সেই দলকে বাদ দিয়ে কোনো জাতীয় ঐক্য হতে পারে না, হবে না। যেটা হয়েছে সেটা ‘জাতীয়তাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য’। বাংলাদেশে ওই সাম্প্রদায়িক ঐক্যের গ্রহণযোগ্যতা নেই।

রোববার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী শিতল বাহার এসআর স্কয়ারে আয়োজিত এক জনসভায় ওবায়দুর কাদের এ কথা বলেন। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঢাকা থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সড়কযাত্রার মাঝে এ সভার আয়োজন করা হয়।

শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে ঢাকা থেকে রওয়ানা হওয়ার পর ফেনী হয়ে চট্টগ্রামে এসে প্রথম দিনের সড়কযাত্রা শেষ হয়। সেখানে রাত্রিযাপন শেষে সকালে শাহ আমানত (র.) এর মাজার জিয়ারত করে দ্বিতীয় দিনের সড়কযাত্রা শুরু করেন আওয়ামী লীগের নেতারা। প্রথমেই তারা কর্ণফুলী ও আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ জনসভায় যোগ দেন।

কর্ণফুলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জান চৌধুরী জাবেদ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুল মতিন খসরু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল প্রমুখ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতীয়তাবাদী সম্প্রদায়িক ঐক্যের গ্রহণযোগ্যতা নেই। তারা নেতায় নেতায় ঐক্য করে, ৩০ দলের ৩০ নেতা, জনগণ তাদের ডাকে সাড়া দেবে না।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন ঐক্য প্রক্রিয়া যেখানে মিটিং করতে চায়, তাদের কোনো বাধা নাই, স্বাগত। তাদের সোহরাওয়ার্দী ময়দান উন্মুক্ত করা হয়েছিল, সেখানে যায়নি। বিএনপি বড় মাঠে যায় না ভয়ে, লোক হবে না। আজ এখানে লক্ষাধিক জনসমাগমের সমান লোক ঢাকায় করে দেখাক।

আর পড়ুন:   ঢাকায় ২ রোগীর শরীরে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

আইআরআই এর জরিপে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা ৬৬ শতাংশ। আর আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা ৬৪ শতাংশ। এই জনপ্রিয় দল বাদ দিয়ে কোনো ঐক্য হয়? হবে না। ওটা জাতীয়তাবাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য। তাদের কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, একসময় চট্টগ্রামকে বিএনপির ঘাঁটি বলা হতো, আজ লাখ লাখ জনতা প্রমাণ করে দেয়, বিএনপির ঘাঁটি ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। বিএনপির ধানের শীষ পেটের বিষ, ধানের শীষ সাপের বিষ। কর্ণফুলী এখন অাওয়ামী লীগের, কর্ণফুলী এখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

বিএনপি নেতারা ছাত্র আন্দোলন, কোটা আন্দোলনে ভর করেছিল, কিন্তু কিছুই করতে পারেনি মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, এসব আন্দোলনে গুজব ছড়ানো হয়েছিল, সেটা প্রমাণিত। তবে গুজব সন্ত্রাস এখনো আছে। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে গুজব সন্ত্রাসকে প্রতিরোধ করতে হবে।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে সম্প্রতি বৈঠক করতে গেছেন দাবি করে মিথ্যাচার করেছেন অভিযোগ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, মির্জা ফখরুল দাবি করছেন জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে গেছেন, অথচ জাতিসংঘ মহাসচিব যুক্তরাষ্ট্রে ছিলেন না, ছিলেন ঘানায়, তারা তৃতীয় শ্রেণীর কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেন, আবার সেটা বলেন। এতেই প্রমাণ হয়, বিএনপি একটি ভুয়া দল, মির্জা ফখরুল ভুয়া।